ইলিয়াসের বিচার চাইলেও নিজে ডিভোর্স দেবেন না সুবাহ

জাহাঙ্গীর আলম
জাহাঙ্গীর আলম জাহাঙ্গীর আলম , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৭ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২২
বিয়ের সাজে ইলিয়াস-সুবাহ। ছবি: সংগৃহীত

মডেল ও অভিনেত্রী শাহ হুমায়রা হোসেন সুবাহ। দীর্ঘদিন আলোচনায় ছিলেন ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে। সেই সম্পর্ক ভাঙার পর মাঝে দীর্ঘদিন আড়ালে ছিলেন। সম্প্রতি সংগীতশিল্পী ইলিয়াস হোসাইনকে বিয়ে করে ফের আলোচনায় আসেন সুবাহ। ভালোবেসে বিয়ে করলেও এক সপ্তাহ না পেরোতে ওই সম্পর্কেও ভাঙন ধরে। তাদের সেই ‘কলহ’ গড়িয়েছে আদালত পর্যন্ত। যৌতুকের জন্য মারধর, ডিজিটাল নিরাপত্তা ও পর্নোগ্রাফি আইনে গায়ক ইলিয়াসের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছেন সুবাহ।

ভালোবেসে বিয়ে করলেও সুবাহ এখন তার স্বামী ইলিয়াসের বিচারের অপেক্ষায়। সুবাহর করা মামলা দুটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত করছে পুলিশ। তদন্তে সত্যতা পেলে ইলিয়াসের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দেবেন তদন্ত কর্মকর্তা। নেওয়া হবে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা।

সুবাহ বলছেন, তিনি ইলিয়াসের কাছ থেকে মুক্তি চাইছেন। তবে তিনি নিজ থেকে ইলিয়াসকে ডিভোর্স দেবেন না। সুবাহ জাগো নিউজকে বলেন, ‘ইলিয়াসের কাছ থেকে মুক্তি চাচ্ছি। ইলিয়াস আমার সঙ্গে অন্যায় করেছেন। আমি তার শাস্তি চাই, ওর বিচারের অপেক্ষায় আছি।’

সুবাহর করা যৌতুকের মামলার তদারকি করছেন উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশনের সহকারী কমিশনার (এসি) গোর্কি চৌধুরী। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘ইলিয়াসের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী সুবাহর করা যৌতুকের জন্য মারধরের মামলাটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত চলছে। তদন্তের পর এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা ও পর্নোগ্রাফি আইনে করা মামলাটি তদন্ত করছেন বনানী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইয়াসিন হোসেন। তিনিও ‘মামলাটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত চলছে’ জানিয়ে বলেন, ‘তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেলে আসামির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

যৌতুকের জন্য নির্যাতন মামলা
যৌতুকের জন্য নির্যাতনের অভিযোগে গায়ক ইলিয়াস হোসাইনের বিরুদ্ধে গত ৩ জানুয়ারি মামলাটি করেন স্ত্রী শাহ হুমায়রা হোসেন সুবাহ। বনানী থানায় করা এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি দাখিলের জন্য দিন ধার্য রয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের সেপ্টেম্বরে সুবাহর সঙ্গে ইলিয়াসের পরিচয় হয়। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কে গড়ে ওঠে। গত ১ ডিসেম্বর তারা বিয়ে করেন। বিয়ের সময় সুবাহর পরিবারের পক্ষ থেকে ইলিয়াসের চাহিদা অনুযায়ী ১২ লাখ টাকা মূল্যের রোলেক্স ব্র্যান্ডের ঘড়িসহ ১৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকার পণ দেওয়া হয়। এতেও ইলিয়াস সন্তুষ্ট হননি। এরমধ্যে সুবাহ জানতে পারেন ইলিয়াস আগেও একাধিক বিয়ে করেছেন। আরও কয়েকজন নারীর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্কও রয়েছে।

ইলিয়াসের বিচার চাইলেও নিজে ডিভোর্স দেবেন না সুবাহ

সুবাহ ও ইলিয়াস। ছবি: সংগৃহীত

এজাহারে বলা হয়, সুবাহর কাছে ফ্ল্যাট কেনা বাবদ ৫০ লাখ এবং গাড়ির জন্য আরও ৩০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন ইলিয়াস। ৯ ডিসেম্বর ইউটিউব চ্যানেল কেনার জন্য সুবাহর মায়ের কাছে আরও ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন ইলিয়াস। তাকে আড়াই লাখ টাকা দেয় সুবাহর পরিবার। পরে গত ২৭ ডিসেম্বর দুপুরে ফ্ল্যাট ও গাড়ি কেনার জন্য ৮০ লাখ টাকার জন্য চাপ দেন তিনি। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়।

এরই জেরে ওইদিন রাত ৮টার দিকে সুবাহকে শারীরিক নির্যাতন করেন ইলিয়াস। পরদিন আবারও ৮০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন তিনি। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে সুবাহকে কয়েক দফায় শারীরিক নির্যাতন করেন ইলিয়াস। এতে জখন হন সুবাহ। এরপর সুবাহকে ব্যথার ওষুধের নামে ঘুমের বা অন্য কোনো ওষুধ খাওয়ান ইলিয়াস। একটু পর সুবাহ অজ্ঞান হয়ে যান। এ সুযোগে ইলিয়াস আলমারিতে থাকা ২০ লাখ টাকার স্বর্ণের অলংকার এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যান।

ডিজিটাল নিরাপত্তা ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা
যৌতুকের জন্য মারধরের অভিযোগে মামলা করার এক সপ্তাহ পরই ডিজিটাল নিরাপত্তা ও পর্নোগ্রাফি আইনে গায়ক ইলিয়াস হোসাইনসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন সুবাহ। মামলার অন্য আসামি হলেন কারিন নাজ। তিনি গায়ক ইলিয়াস হোসাইনের ‘কথিত স্ত্রী ও মডেল’ বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

ইলিয়াসের বিচার চাইলেও নিজে ডিভোর্স দেবেন না সুবাহ

ইলিয়াসের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে কান্নায় ভেঙে পড়েন সুবাহ। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর বনানী থানায় গত ১১ জানুয়ারি রাতে মামলাটি করার পর ১২ জানুয়ারি এজাহার আদালতে পৌঁছে। এরপর ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাতুল রাকিব এজাহার গ্রহণ করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে ১৬ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন দুই আসামি। হোয়াটসঅ্যাপে বিভিন্ন স্ক্রিনশট পাঠিয়ে সামাজিক মর্যাদাহানি করতে ভীতি প্রদর্শনসহ ডিজিটাল মাধ্যমে আক্রমণাত্মক ও মানহানিকর বক্তব্য প্রকাশ ও প্রচার করেন ইলিয়াস ও কারিন নাজ

অভিযোগ-মামলা নিয়ে আলোচনার মধ্যে এ মাসের প্রথম সপ্তাহে দুবাই চলে গেছেন ইলিয়াস। সেখানে গিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একাধিক পোস্ট দিতেও দেখা গেছে তাকে। তিনি মাস খানেক দুবাইতে অবস্থান করবেন বলে জানা গেছে।

জেএ/এএএইচ/এইচএ/জেআইএম

ইলিয়াসের কাছ থেকে মুক্তি চাচ্ছি। ইলিয়াস আমার সঙ্গে অন্যায় করেছেন। আমি তার শাস্তি চাই, ওর বিচারের অপেক্ষায় আছি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]