যানজট নিরসনে নেক্সপার্কের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:২০ এএম, ২২ এপ্রিল ২০১৮

ঢাকার রাস্তায় গাড়ির মালিকদের সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তে হয় গাড়ি পার্কিং নিয়ে। ঢাকায় গাড়ির তুলনায় পার্কিং কম হওয়ায় সবাই রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করে। আর গাড়িতে আলাদা ড্রাইভার না থাকলে গাড়ি নিয়ে দুশ্চিন্তার পরিমাণ আরো একটু বেশি। কারণ আপনি যেখানে গাড়িটি রেখেছেন সেখানে কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে, যানজটের কারণে পুলিশ জরিমানা করতে পারে।

যত্রতত্র পার্কিংয়ের ফলে সৃষ্টি হয় অসহনীয় যানজট। ঢাকার যানজটের অন্যতম কারণ হচ্ছে নির্দিষ্ট স্থানে গাড়ি পার্কিং না করা। আর নির্দিষ্ট স্থানে পার্কিং না করার অন্যতম বাধা দু’টি। প্রথমত পার্কিং সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান না থাকা এবং দ্বিতীয়ত পর্যাপ্ত পার্কিং স্পট না থাকা।

ঢাকার রাস্তার যানজট সমাধানে অর্থাৎ পার্কিং সল্যুশন নিয়ে ২০১৬ সাল থেকে কাজ করছে তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান নেক্সপার্ক। নেক্সপার্ক টিম বলছে, ঢাকার সবচেয়ে বেশি পার্কিং অনিয়ম দেখা যায় গুলশান ১-২, মতিঝিল, কাকরাইল, ধানমন্ডি, গ্রীনরোড, সাত মসজিদ রোড, পান্থপথ, মিরপুর ১, ২, ১০, পল্লবী, মোহাম্মদপুর ও উত্তরার বিভিন্ন সেক্টর। এসব জায়গায় যে সময় যত্রতত্র পার্কিং হয় তার মধ্যে অন্যতম হলো স্কুল শুরু ও শেষ সময়, অফিসের শুরু এবং শেষ সময়, কেনাকাটার সময়, চিকিৎসক পরিদর্শনের সময়, পার্টি সেন্টারে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার সময় ইত্যাদি।

NexParc

ঢাকার পার্কিংয়ের এসব সমস্যার সমাধানের জন্য সমস্যাগুলোকে চিহ্নিত করে নেক্সপার্ক টিম তৈরি করেছে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নেক্সপার্ক। এটি বাংলাদেশের প্রথম পার্কিং শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম। এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি পছন্দমতো স্থানে পার্কিং বাছাই করে সেখানে পার্কিং করতে পারবেন। অপরদিকে গ্যারেজের মালিকরা তাদের পার্কিং স্পেস ভাড়া দিতে পারবেন। এর ফলে রাস্তার পাশে পার্কিং করা গাড়িগুলো যদি না থাকে তাহলে যানজট অনেকটাই কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।

নেক্সপার্কের কো-ফাউন্ডার মোহাম্মদ শাহরিয়ার খান গত ১০ বছর ধরে কাজ করছেন দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে। তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে এমন একটি প্ল্যাটফর্ম দাঁড় করাচ্ছি- যেখানে গাড়ির মালিক ও গ্যারেজের মালিকের মধ্যে সমন্বয় সাধন করা যাবে। একটি গাড়ি সকালে বেরিয়ে যাওয়ার পর গ্যারেজ বা পার্কিং স্পেস খালিই পড়ে থাকে। সেখানে সাময়িক সময়ের জন্য আরেক জনকে সুযোগ দিয়ে সহজেই ঢাকার যানজট নিরসনে এগিয়ে আসতে পারেন। সে সময়টুকু গ্যারেজ নেক্সপার্কের মাধ্যমে ঘণ্টা, দৈনিক, সাপ্তাহিক, মাসিক হিসেবে ভাড়া দিয়ে অতিরিক্ত আয় করাও সম্ভব। বাংলাদেশের যে কোনো ব্যাংকের ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডসহ বিকাশের মাধ্যমেও এ লেনদেন করা যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি পার্কিংয়ের যথাযথ তথ্য নেক্সপার্ক অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকের স্মার্টফোনে পৌঁছে দিতে। অ্যাপটি আপনার স্মার্টফোনে ডাউনলোড করলেই ঢাকার যে কোনো জায়গায় পার্কিং সম্পর্কিত আপডেট পাবেন। এই অ্যাপে প্রথমে নিজের গাড়ি এবং মোবাইল নম্বর দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। অ্যাপে দেখা যাবে কোথায় কোথায় পার্কিং রয়েছে। চালক প্রয়োজনীয় পার্কিংয়ের জায়গা বেছে নিয়ে তাতে ক্লিক করলে সেই পার্কিং লটে জায়গা ফাঁকা আছে কিনা জানা যাবে।’

NexParc

শাহরিয়ার খান বলেন, ‘ঘরে বসেই কোথাও যাওয়ার আগেই জানতে পারবেন সেখানে পার্কিংয়ের জায়গা খালি আছে কিনা। সবসময় আপনার নিকটস্থ কোথায় গাড়ি পার্ক করার সুযোগ আছে জানাবে নেক্সপার্ক। পার্কিং বুকিংয়ের সময় আপনার কতক্ষণের জন্য পার্কিং প্রয়োজন জানাতে হবে। অনলাইনেই হয়ে যাবে বিল পেমেন্ট। বর্তমানে শুধু গাড়ি ও মোটরসাইকেল পার্কিং করতে পারবেন। শিগগিরই অন্যান্য যানবাহনের জন্যও পার্কিং সুবিধা চালু হবে।’

এছাড়াও এই অ্যাপসের মাধ্যমে জরুরি প্রয়োজনে অ্যম্বুলেন্স সার্ভিস, হাসপাতাল, নিকটস্থ এটিএম বুথসহ ওষুধের দোকান খুঁজে নেওয়ার ব্যবস্থা আছে। এমনকি গাড়িটি রাস্তায় নষ্ট হয়ে গেলে বা গাড়ির যে কোনো প্রকার মেরামত করতে চাইলে রেজিস্ট্রার্ড সার্ভিস সেন্টার থেকে প্রয়োজনীয় সেবা নিতে পারবেন। গুগল প্লে-স্টোর থেকে নেক্সপার্ক অ্যাপসটি ডাউনলোড করতে goo.gl/PnHnbP লিঙ্কে যেতে হবে। শিগগিরই আইওএস’র জন্যও অ্যাপ চালু করা হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এসইউ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]