৮২ বছর বয়সে কেটেছেন ১৪টি পুকুর

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:১৫ পিএম, ২৫ জুলাই ২০১৮

পানির অপর নাম জীবন। তবে তা অবশ্যই বিশুদ্ধ হতে হবে। তাই তো বিশুদ্ধ পানি সংরক্ষণের জন্য কাটা হয় পুকুর। গ্রামাঞ্চলে প্রতিটি বাড়িতে একটি বা দুটি পুকুর থাকে। কিন্তু এক বৃদ্ধই পুকুর কেটেছেন ১৪টি। অবাক হলেও ঘটনা সত্য। আসুন জেনে নেই বিস্তারিত-

বৃদ্ধের নাম কেরে কামেগৌড়া। বয়স ৮২ বছরের মতো হবে। বেঙ্গালুরুর মালাভাল্লি তালুকের দাসানডোড্ডি গ্রামের বাসিন্দা তিনি। তার হাতে তৈরি হয়েছে ১৪টি পুকুর। পানি সংরক্ষণের জন্য তিনি তৈরি করেছেন পুকুরগুলো। ভারতের বেঙ্গালুরু-মালাভাল্লি-কোলেগাল সড়কে যাতায়াত করলে চোখে পড়বে পুকুরগুলো।

তার দেখা মেলে নিজের ছোট্ট ঘরে। বয়সের ভারে ন্যুব্জ। তবে মনের দিক থেকে এখনো তরুণ। প্রায় ১২ ঘণ্টা পরিশ্রম করেন। ৫০টি ভেড়া নিজে চড়ান, দেখভাল করেন। কখনো কখনো গাছের চারা রোপণ করেন। আবার মাটি খুঁড়ে পুকুর তৈরি করেন একাই।

এভাবে তিনি গড়ে তুলেছেন ১৪টি পুকুর। ২০১৭ সালে ৬টি পুকুর তৈরি করেন। পরে ২০১৮ সালের মধ্যে তৈরি করেন আরও ৮টি পুকুর। এজন্য তার নাম দেওয়া হয়েছে ‘কেরে’। যার বাংলা অর্থ ‘পুকুর’ বা ‘লেক’। এজন্য তিনি অনেক পুরস্কার পেয়েছেন।

এ পুরস্কারের অর্থ নিজের কাজে লাগান না তিনি। সে টাকা দিয়ে কিনেছেন আধুনিক প্রযুক্তির মাটি খোঁড়ার যন্ত্র। ফলে একের পর এক গড়ে তুলেছেন হাতে গড়া পুকুর। এছাড়া এলাকার যাতায়াত ব্যবস্থা উন্নত করতে তৈরি করেছেন ছোট ছোট রাস্তা।

সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে- এলাকার মেষপালকদের পাহাড়ে চড়তে যাতে অসুবিধা না হয়, সে জন্য পাহাড়ের ঢাল বেয়ে তৈরি করেছেন রাস্তা। শুধু ১৭-১৮ সালই নয়, চল্লিশ বছর আগেও এই খনন কাজ শুরু করেন তিনি। স্থানীয় মানুষের কষ্ট দেখেই কাজ শুরু করেন তিনি।

এসইউ/এমএস