বর্ষপূর্তিতে বিপাকে ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:০৭ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ১১:৩০ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮

এক বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব শুরু করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু তার এক বছর পূর্তির দিনেই অচলাবস্থায় পড়েছে দেশ। আর্থিক সঙ্কটে থমকে গেছে সরকারি দফতরগুলোর কাজ।

ব্যয়-সংক্রান্ত বিল নিয়ে ট্রাম্প ও রিপাবলিকানদের সঙ্গে ডেমোক্রেট দলের মতানৈক্য এখনও রয়েই গেছে। ফলে শনিবার ক্ষমতা গ্রহণের এক বছর পূর্তিতে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম এই প্রেসিডেন্টকে।

রিপাবলিকানরা বলছেন, সরকারি কার্যক্রম পুণরায় শুরু না হওয়া পর্যন্ত কোনো অভিবাসন নীতি নিয়ে তারা কোনো আলোচনায় বসবেন না। শুক্রবার রাতভর আলোচনা হলেও ফেডারেল সংস্থাগুলোর জন্য তহবিল বিষয়ে কোনো চুক্তিই হয়নি কংগ্রেসে। তবে রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাট নেতারা সমস্যা সমাধানে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন। কিন্তু সোমবারের আগেই হয়তো কোনো সমাধান পাওয়া যেতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছে হোয়াইট হাউস।

বৃহস্পতিবার স্বল্পকালীন বাজেটের প্রস্তাব হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভ বা মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের ভোটে পাশ হয়। শুক্রবার রাতে বাজেট বিল পেশ করেন রিপাবলিকানরা। কিন্তু শেষ মূহূর্তেও ডেমোক্রেটদের সঙ্গে মতের মিল না হওয়ায় তা আটকে যায়।

এর ফলে সরকারি কর্মকর্তারা সাময়িকভাবে কর্মহীন হয়ে পড়ছেন অথবা অবৈতনিক ছুটিতে যেতে বাধ্য হচ্ছেন আর তাই ট্রাম্পকে সরকারি কর্মচারী, কর্মকর্তা ছাড়াই নিরস একটি বর্ষপূতি পালন করতে হচ্ছে।

ডেমোক্র্যাটদের দোষারোপ করে ট্রাম্প বলেছেন, সরকারের সাফল্য সহ্য করতে না পেরেই এই কাজ করছে তারা। ডেমোক্র্যাটদের দাবি ছিল, আট লক্ষ অস্থায়ী কর্মীকে স্থায়ী করতে হবে। ড্রিমারর্সদের হয়েও দাবি জানিয়েছে তারা। অনেকেই শিশু অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন। কিন্তু এখনও বেআইনি অভিবাসী হয়েই রয়ে গেছেন তারা। আগামী মার্চ মাসে শেষ হয়ে যাচ্ছে তাদের আইনি নিরাপত্তার সময়সীমা। সে ক্ষেত্রে অন্তত ৭ লাখ তরুণ অভিবাসীকে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়তে হবে।

এক টুইট বার্তায় ডেমোক্র্যাটদের খোঁচা দিয়ে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘আজ আমার প্রেসিডেন্সির এক বছর পূর্ণ হলো। আর ডেমোক্রেটরা এই দিনেই আমাকে একটি চমৎকার উপহার দিয়েছে।’

এদিকে, ডেমোক্রেটরা বলছেন যে কোনও স্বল্পমেয়াদী ব্যয়-সংক্রান্ত বিলে ড্রিমার্স হিসেবে পরিচিত অনথিভুক্ত অভিবাসীদের সুরক্ষার বিষয়গুলো অবশ্যই থাকতে হবে। কিন্তু এর প্রেক্ষিতে রিপাবলিকানরা বলছেন যতক্ষণ পর্যন্ত সরকারি কার্যক্রম শুরুর ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ভোট ডেমোক্রেটরা না দেবেন ততক্ষণ পর্যন্ত তারা অভিবাসী নীতিতে কোনো ধরনের আলোচনায় বসবেন না।

টিটিএন/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :