ফ্রান্সে জাতীয় ঐক্য ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:০৬ পিএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮

দেশে জাতীয় ঐক্য ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ফরাসী প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড ফিলিপ। চার সপ্তাহ ধরে দেশজুড়ে বিক্ষোভ ও সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। শনিবার ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভকারীদের প্রতিহত করতে টিয়ার গ্যাস এবং রাবার বুলেট ছুড়েছে পুলিশ। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি এবং জীবন যাত্রার মান বৃদ্ধির প্রতিবাদে রাজধানী প্যারিসসহ দেশজুড়ে বিক্ষোভ চলছে।

টানা তিন সপ্তাহ ধরে ‘ইয়োলো ভেস্ট’ নামে সরকার বিরোধী আন্দোলনে দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শনিবারও নতুন করে বিক্ষোভ হওয়ায় আইফেল টাওয়ার বন্ধ রাখা হয়।

বিক্ষোভে অংশ নেয়াদের মধ্য থেকে এক হাজারের বেশি মানুষকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তবে প্রথমদিকে সহিংসতা যেমন ছিল তা এখন আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে।

paris-2

প্রধানমন্ত্রী ফিলিপ বলেছেন, বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ আলোচনা চালিয়ে যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, কোন ধরনের ট্যাক্স আমাদের জাতীয় ঐক্যকে বিপন্ন করতে পারবে না। এখন আলোচনা, কাজ এবং একত্র হয়ে আমাদের জাতীয় ঐক্য পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে।

সরকার জ্বালানি তেলের উপর বাড়তি কর আরোপের পরিকল্পনা নেয়ায় চার সপ্তাহ আগে এই বিক্ষোভ কর্মসূচির সূত্রপাত হয়। আন্দোলনকারীরা ইয়েলো ভেস্ট পরে রাস্তায় নেমে আসেন। তবে বিক্ষোভের কারণে পরবর্তীতে বাড়তি কর প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিলেও আন্দোলনকারীরা বিক্ষোভ থাময়নি। বরং ফ্রান্সে জীবনযাপনের খরচ বেড়ে যাওয়া এবং প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

paris-3

চলমান বিক্ষোভ মোকাবেলার জন্য শনিবার সারা দেশে ৯০ হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এর মধ্যে শুধু প্যারিসেই মোতায়েন করা হয় ৮ হাজার পুলিশ। আন্দোলনকারীরা আগেই বিক্ষোভের ঘোষণা দেয়ায় রাজধানী প্যারিসের যাদুঘর, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর এবং মেট্রো বন্ধ রাখা হয়।

শনিবার এক টুইট বার্তায় সাহসিকতা এবং সঠিকভাবে পেশাদারিত্ব পালনের কারণে নিরাপত্তা বাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শনিবার দেশজুড়ে ১ লাখ ২৫ হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন।

টিটিএন/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :