রাখাইনে সংঘাত: দ্রুত ত্রাণ সরবরাহের সুযোগ দিতে জাতিসংঘের আহ্বান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:২২ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

রাখাইন প্রদেশে বৌদ্ধ বিদ্রোহীদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর চলমান সংঘর্ষে বাস্ত্যুচুত হাজার হাজার মানুষকে দ্রুত এবং অবাধে ত্রাণ সহায়তা দেয়ার সুযোগ দিতে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। রাখাইনের স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সদস্যরা সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছে। সংঘর্ষে গৃহহীন হয়ে পড়া হাজারো মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছাতে সোমবার এই আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

এর আগে গত সপ্তাহে রাখাইন প্রদেশ সরকার উত্তরাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলের পাঁচটি শহরে বেসরকারি সংস্থা এবং জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। সংঘাতের কারণে রাখাইনের এই দুই অঞ্চলে প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করে একটি নোটিশ জারি করা হয়।

তবে নোটিশে বলা হয়, ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রস (আইসিআরসি) ও জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে না।

আরও পড়ুন : শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে তিন ধাপ উন্নতি বাংলাদেশের

গত সপ্তাহে দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধানের সঙ্গে বিরল এক বৈঠকে আরাকান আর্মির বিদ্রোহীদের গুঁড়িয়ে দিতে সেনাবাহিনীকে অভিযান শুরুর আহ্বান জানান মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট। দেশটির ডি ফ্যাক্টো নেত্রী ও শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সু চির অনুগত প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট।

জাতিসংঘের মানবিক সহায়তা সমন্বয় অফিসের তথ্য বলছে, জানুয়ারির শুরুর দিকে রাখাইনে শুরু হওয়া বিদ্রোহীদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর সংঘর্ষে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ বাড়িঘর ছেড়ে মঠ এবং অন্যান্য ধর্মীয় স্থাপনায় আশ্রয় নিয়েছেন।

সূত্র : রয়টার্স।

এসআইএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :