সিরিয়ার মানবিজ দখলে প্রস্তুত তুরস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০২ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৯

কুর্দি সেনা অধ্যুষিত সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় শহর মানবিজ নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিতে প্রস্তুত তুরস্ক। রোববার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এক ফোনালাপে এ কথা জানান তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আলজাজিরার প্রতিবেদেন জানানো হয়েছে, গত সপ্তাহে মানবিজে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের হামলায় (আইএস) চার মার্কিন সেনা নিহত হয়। এ হামলার প্রেক্ষিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে এমন কথা জানালেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান।

তুরস্কের প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, রোববার এক ফোনালাপে এরদোয়ান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে বলেন, ইসলামিক স্টেট এ হামলা চালিয়েছে। যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়টিকে প্রভাবিত করতেই আইএস এমন হামলা করেছে বলে দাবি করেন তিনি।

গত বছরের ১৯ নভেম্বর সিরিয়ায় আইএস পরাজিত হয়েছে দাবি করে দেশটি থেকে দুই হাজার মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন ট্রাম্প। তবে নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ও নীতি-নির্ধারকরা ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত পোষণ করেন নি। মার্কিন সেনা সরে গেলে আবার সিরিয়ায় আইএস এর উত্থানের আশঙ্কায় সেখানে সেনা রাখার পক্ষপাতি তারা।

যুক্তরাষ্ট্র ওয়াইপিজি কুর্দিদেরকে সমর্থন দিয়ে আসছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়া থেকে সেনা ফেরানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করার পরই যুক্তরাষ্ট্র-সমর্থিত কুর্দি যোদ্ধারা মানবিজ ছাড়ে। ২০১৬ সালে আইএসকে হটিয়ে মানবিজের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকে শহরটি এই সামরিক কাউন্সিলের কর্তৃত্বাধীনে আছে।

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে মার্কিন বাহিনী ও কুর্দি মিলিশিয়ারা একসঙ্গে লড়াই করেছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস জোটের বড় শরিক কুর্দিদের পিপলস প্রটেকশন ইউনিটকে (ওয়াইপিজি) সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে বিবেচনা করে তুরস্ক।

এই গোষ্ঠীটির প্রতি মার্কিন সমর্থন নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান গোষ্ঠীটিকে নির্মূল করার শপথ নেন। এরদোয়ানের এমন মন্তব্যের পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তুরস্ককে হুমকি দিয়ে বলেন, সেনা প্রত্যাহারের পর সিরিয়ার কুর্দি বাহিনীগুলোকে আক্রমণ করলে তুরস্ককে অর্থনৈতিকভাবে ধ্বংস করে দেয়া হবে।

এসএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :