বাংলাদেশ নিয়ে উদ্বেগ-প্রশংসা-প্রত্যাশা মার্কিন কর্মকর্তার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪৬ এএম, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯

‘বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে আজ ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। রাখাইন সঙ্কট, সদ্যসমাপ্ত বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনিয়মের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ ও বন্ধুসহ নিজ বাসায় নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার মার্কিন দাতব্য সংস্থার কর্মী জুলহাস মান্নান হত্যাকাণ্ডের ন্যায়বিচার-সংক্রান্ত বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি।’

নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক টুইটবার্তায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা-ইউএসএআইডির প্রশাসক মার্ক গ্রিন এমনটাই জানিয়েছেন।

মঙ্গলবারের (২২ জানুয়ারি) ওই বৈঠকবিষয়ক বিস্তারিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিও টুইটবার্তায় জুড়ে দিয়েছেন তিনি। ইউএসএআইডির ভারপ্রাপ্ত মুখপাত্র টম বাবিংটনের বরাতে প্রচারিত ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মতে, ওয়াশিংটন ডিসিতে ইউএসএআইডির পরিচালক মার্ক গ্রিন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল হকের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

দুই কর্মকর্তা বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার শক্তিশালী বন্ধুত্ব ও মৈত্রীবন্ধন, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের চলমান সংকট এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠেয় মানবাধিকারবিষয়ক পরবর্তী সম্মেলন ইস্যুতে আলোচনা করেন।

প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গার আশ্রয় ও তাদের প্রতি উদারতা দেখানোর জন্য পররাষ্ট্র সচিবের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন পরিচালক গ্রিন।

বৈঠকে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক নির্বাচনে হয়রানি, ভীতি প্রদর্শন ও সহিংসতাসহ সকল অনিয়মের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র যে বিশ্বাসযোগ্য প্রতিবেদন পেয়েছে সেটি তুলে ধরে উদ্বেগ প্রকাশ করেন মার্কিন এই কর্মকর্তা।

অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করা ও বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে বাংলাদেশের আকাঙ্ক্ষার কথা উল্লেখ করে তিনি ব্যবসার জন্য কার্যকর পরিবেশ সৃষ্টিতে নাগরিকবান্ধব সরকার, সর্বক্ষেত্রে স্বচ্ছতা, মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধা এবং শক্তিশালী গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান নিশ্চিতের প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন।

একইসঙ্গে মার্ক গ্রিন তিন বছর আগে ঢাকায় নির্মমভাবে নিহত ইউএসএইডের কর্মকর্তা জুলহাস মান্নানের হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় আনতে সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি মার্কিন প্রশাসনের তাগিদ ব্যক্ত করেন।

এসআর/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :