সমান মজুরির দাবিতে সুইজারল্যান্ডের রাস্তায় হাজারো নারী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৩৫ পিএম, ১৪ জুন ২০১৯

সমান মজুরির দাবিতে সুইজারল্যান্ড জুড়ে হাজারো নারী রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছে। শুক্রবার এই বিক্ষোভ শুরু করার পর তারা বলছে, দেশে অপ্রত্যাশিতভাবে নারী-পুরুষ সমতার অধপতন হয়েছে। প্রগতিশীল হিসেবে পরিচিত ওই দেশটিতে আজ থেকে প্রায় ত্রিশ বছর আগেও নারীরা এমন দাবিতে বিক্ষোভ করেছিল।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, শুক্রবারের এই বিক্ষোভের মতো ২৮ বছর আগে ১৯৯১ সালেও সুইজারল্যান্ডের নারীরা সমতার জন্য রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছিল। সে সময়কার ওই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিল প্রায় ৫ লাখ নারী।

দিনব্যাপী নানাভাবে বিক্ষোভ প্রদর্শনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্র্যাম নামক একধরনের গাড়িতে করে মিছিল, কনসার্ট থেকে শুরু করে দুপুরের খাবারের সময় বাড়ানো ও বড় পরিসরে বনভোজনের আয়োজন করা হয়েছে। সন্ধ্যায় বার্নের সরকারি কার্যালয়ের সামনেসহ বিভিন্ন শহরে বিশাল বিক্ষোভের পরিকল্পনা করেছেন নারীরা।

আরও পড়ুন>> ইজতেমার ছবি জিতল ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক পুরস্কার

দেশটির নারীরা দীর্ঘদিন ধরেই লিঙ্গ সমতার জন্য নানান প্রচারণা চালিয়ে আসছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯১৮ সালে ইউরোপের লাখ লাখ নারী তাদের ভোটাধিকার পাওয়ার জন্য রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ পালন করে। তবে তারপরও ভোটাধিকার পাওয়ার জন্য তাদের ১৯৭১ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছিল।

১৯৯১ সালে যখন শেষ বিক্ষোভটি হয় তখন দেশটির সরকারে কোনো নারী ছিলনা। তাছাড়া দেশটির চাকরিজীবী কোনো নারীকে মাতৃত্বকালীন ছুটিও দেয়া হতো না। সেই বিক্ষোভের পর দেশটির মন্ত্রিসভায় আটজন নারী স্থান পায়। তাছাড়া পরে আইন করে মাতৃত্বকালীন ছুটির ব্যবস্থাও করা হয়।

গতমাসে জাতিসংঘের শ্রম বিষয়ক সংস্থা আইএলও এক জরিপ করে। সংস্থাটির সেই জরিপে নারী ও পুরুষের মজুরির ক্ষেত্রে সমতা না থাকায় সুইজারলান্ডের অবস্থান ছিল একেবারে তলানিতে। সার্বিকভাবে গোটা দেশে নারীদেরকে বঞ্চিত করার এমন প্রক্রিয়া বন্ধের জন্যই এই আন্দোলন।

এসএ/এমকেএইচ