থাকার জায়গা নেই, শৌচাগারেই ১৯ বছর!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:২৫ এএম, ২৫ আগস্ট ২০১৯

ভারতের তামিলনাডু রাজ্যের ৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা। নাম কারুপ্পাই। থাকার ঘর নেই তার। তাই শৌচাগার পরিষ্কার করেই দিন কাটে। থাকেনও সেখানেই। মধুরাই শহরের ওই শৌচাগার পরিষ্কার করে দিন এনে দিন খেয়ে কোনোমতে জীবন চলে তার।

বয়স হলেও বয়স্কভাতা না পেয়ে প্রায় দুই দশক ধরে এভাবে শৌচাগারেই দিনরাত অতিবাহিত করছেন তিনি। বৃদ্ধার করুণ এই জীবনের গল্প নিয়ে দেশটির গণমাধ্যমগুলো প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। তারপর থেকে অনেকেই তাকে সাহায্যের প্রস্তাব দিয়েছেন।

ভারতের বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের মতে, গত ১৯ বছর ধরে মধুরায় শহরের রামনাদ এলাকায় একটি সরকারি শৌচাগারে বসবাস করছেন ওই বৃদ্ধা। তিনি বলেন, ‘আমি বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু পাইনি। অনেক সরকারি কার্যালয়ে ঘুরেছি ভাতার জন্য। কিন্তু কিছুই পাইনি।’

কারুপ্পাই নামের ওই বৃদ্ধা জানান, ‘শৌচাগার পরিষ্কার করে প্রতিদিন আমার আয় হয় ৭০ থেকে ৮০ রুপি। যা দিয়ে ভাড়া বাড়িতে থাকা অসম্ভব। তাই শৌচাগারেই বছরের পর বছর ধরে আছি। আমার এক মেয়ে থাকলেও সে কখনো আমাকে দেখতে আসে না।’

প্রথমে তার এই জীবন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছবি প্রকাশ পায়। দ্রুত সেই ছবি ছড়িয়ে পড়ে। তার জীবনের করুণ কাহিনি শুনে অনেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। সরকারি কার্যালয়কে ট্যাগ করে কারুপ্পাইয়ের সাহায্যে এগিয়ে আসতে অনুরোধও জানিয়েছেন অনেকে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের অনেকেই কারুপ্পাইয়ের বয়স্ক ভাতা না পাওয়ার প্রসঙ্গ টেনে সরকারের সমালোচনা করছেন। তারা বলছেন, একজন অসহায় বয়স্ক নারী যদি ভাতা না পান, তাহলে পাবেন কে? এই ঘটনায় দায়ী সরকারি কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

এসএ/এমএস