এসপিজি বাতিল, সোনিয়ার জন্য ১০ বছরের পুরোনো টাটা গাড়ি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:০৪ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

গান্ধী পরিবারের বিশেষ নিরাপত্তা (এসপিজি) প্রত্যাহারের পর কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধীসহ বাকি সবার জন্য দশ বছরের পুরোনো টাটা সাফারি গাড়ি আর তাদের বাসভবনে পুলিশের প্রহরার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সোমবার লোকসভার শীতকালীন অধিবেশনে এই প্রসঙ্গ তুলে এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিবৃতি চেয়েছে কংগ্রেস।

গত ৮ নভেম্বর গান্ধী পরিবারের স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ (এসপিজি) নিরাপত্তা বাতিল করে মোদি সরকার। তাদেরকে জেড প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তায় অবনমন করা হয়। এর মাধ্যমে ভারতের রাজনৈতিক পরিবারটির সদস্যদের নিরাপত্তার জন্য প্রায় ৩০ বছর ধরে যে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল তার অবসান ঘটে।

এসপিজি বাতিল করে গান্ধী পরিবারের জন্য ১০০ সিআরপিএফ জওয়ান বরাদ্দ করা হয়েছে। ১৯৯১ সালে সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী নিহত হলে গান্ধী পরিবাররের সুরক্ষায় এসপিজি চালু হয়। এতদিন গান্ধী পরিবারের নিরাপত্তায় তিন হাজার নিরাপত্তাকর্মী নিয়োজিত ছিল। এছাড়া তাদের বাসভবনের নিরাপত্তা দিতেন কমান্ডো বাহিনী।

এসপিজি বাতিল করে মোদির মন্ত্রিসভা গান্ধী পরিবারের জন্য জেড প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা ব্যবস্থা চালু করায় রাজধানী দিল্লিতে এখন সোনিয়া ও রাহুল গান্ধীর বাসভবনের পাহারা দেন সাধারণ পুলিশ সদস্যরা। এছাড়া কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর এসপিজি নিরাপত্তাও তুলে নেয়া হয়েছে।

শুধু নিরাপত্তারক্ষী নয় বুলেটপ্রুফ বিশেষ গাড়ির পরিবর্তে পরিবারটির নিরাপত্তার জন্য এখন বরাদ্দ করা হয়েছে ২০১০ সালের পুরনো টাটা সাফারি। এসপিজি নিরাপত্তা পাওয়ার সময় সোনিয়া ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংসে সক্ষম রেঞ্জ রোভার্স ও রাহুল গান্ধী ফরচুনার গাড়ি ব্যবহার করতেন।

শুধু গান্ধী পরিবার নয় কংগ্রেসে দলীয় ভারতের দুবারের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থাও হ্রাস করা হচ্ছে। এর আগে মনমোহন সিংয়েরও এসপিজি বাতিল করে সরকার। মঙ্গলবার সংসদে এই ইস্যু উত্থাপন করে প্রতিবাদ জানান কংগ্রেসের এমপিরা। ন্যাশনাল কনফারেন্সের এমপিরাও তাদের সঙ্গে যোগ দেন।

লোকসভায় দেয়া বক্তৃতায় কংগ্রেসের সংসদ নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন, ‘বাজপেয়িজি (বিজেপি দলীয় ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী) গান্ধী পরিবারের জন্য স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ (এসপিজি) বরাদ্দ করেছিলেন। এতদিন সেটা প্রত্যাহার করা না হলেও মোদি সরকার তা বাতিল করলেন কেনো তার জবাব দিতে হবে।’

ভারতে সাধারণত প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবার এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্যরাই এসপিজি নিরাপত্তা পেয়ে থাকেন। তিন হাজার সুশৃঙ্খল বাহিনী সারাক্ষণ তাদের নিরাপত্তা দেন। আর জেড প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তায় ভিভিআইপিদের নিরাপত্তায় মোতায়েন থাকেন দেশটির আধা সামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) জওয়ান।

মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর এর আগে গত আগস্টে কংগ্রেস দলীয় দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের এসপিজি নিরাপত্তা তুলে নেয়। একই পরিবারের দুই সাবেক প্রধানমন্ত্রী আততায়ীদের হাতে নিহত হওয়ার কারণেই গান্ধী পরিবারকে এসপিজি নিরাপত্তা দেয়া হত।

নরেন্দ্র মোদিই একাই এখন এই নিরাপত্তা সুবিধা পাবেন। এর আগে ভারতের সাবেক দুই প্রধানমন্ত্রী জনতা দলের এইচ ডি দেবগৌড়া এবং কংগ্রেস দলীয় প্রধানমন্ত্রী বিশ্বনাথ প্রতাপ সিংকে দেয়া বিশেষ নিরাপত্তা সুবিধা প্রত্যাহার করা হয়। তবে বিজেপি দলীয় আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ি আমৃত্যু (২০১৮) এই সুবিধা পেয়েছেন।

এসএ/জেআইএম