নওয়াজ শরিফকে পলাতক ঘোষণা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩০ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের জামিনের মেয়াদ না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির ক্ষমতাসীন সরকার। একই সঙ্গে ইসলামাবাদের হাইকোর্টের বিশেষ একটি বোর্ডের কাছে মেডিকেল রিপোর্ট জমা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় জামিনের শর্ত লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে সাবেক এই পাক প্রধানমন্ত্রীকে পলাতক ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের নেতৃত্বে মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ডন। বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তথ্য-সহকারী ডা. ফিরদৌস আশিক আওয়ান সংবাদ সম্মেলন করেন। তিনি বলেন, লন্ডনের যেকোনো হাসপাতালের মেডিকেল রিপোর্ট দাখিল করতে ব্যর্থ হওয়ায় মেডিকেল বোর্ড নওয়াজ শরিফের পাঠানো মেডিকেল সার্টিফিকেট প্রত্যাখ্যান করেছে এবং সরকার তাকে পলাতক হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে।

ফিরদৌস আশিক বলেন, আইন অনুযায়ী আজ থেকে নওয়াজ শরিফ পলাতক। তিনি যদি দেশে ফিরে না আসেন তাহলে তাকে পলাতক অপরাধী হিসেবে ঘোষণা দেয়া হবে।

তিনি বলেন, লন্ডনের যেকোনো হাসপাতালের মেডিকেল রিপোর্ট দাখিলের জন্য ইসলামাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশে পাঞ্জাব প্রদেশের সরকার নওয়াজ শরিফের কাছে একাধিকবার চিঠি লিখেছে। স্বেচ্ছা নির্বাসিত এই প্রধানমন্ত্রী তা পাঠাতে ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি মাত্র একটি সার্টিফিকেট পাঠিয়েছেন; যা মেডিকেল বোর্ড প্রত্যাখ্যান করেছে।

পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিশেষ এই সহকারী বলেন, নওয়াজ শরিফ যদি গুরুতর অসুস্থ্য হন, তাহলে মেডিকেল বোর্ডের কাছে কেন বিস্তারিত রিপোর্ট দাখিল করছেন না তিনি।

পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) এই প্রধান দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে কারাবন্দি ছিলেন। গত বছরের ২৯ অক্টোবর শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় ইসলামাবাদ হাইকোর্ট সাবেক এই পাক প্রধানমন্ত্রীকে আট সপ্তাহের জামিন দেন।

কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ায় ১৯ নভেম্বর লন্ডনের উদ্দেশে দেশ ছাড়েন নওয়াজ শরিফ। নওয়াজের ছোট ভাই এবং দেশটির সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা শাহবাজ শরিফও একই সঙ্গে লন্ডন যান।

ফিরদৌস আশিক বলেন, নওয়াজ শরিফ আসলে কি ধরনের অসুস্থ্যতায় ভুগছেন এবং কেমন চিকিৎসা নিচ্ছেন মেডিকেল বোর্ড সে বিষয়ে জানতে চায়। কিন্তু যথাযথ সাড়া না পাওয়ায় পাঞ্জাব সরকার নওয়াজ শরিফের জামিনের মেয়াদ না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত ২৪ ডিসেম্বর দেশটির তিনবারের এই প্রধানমন্ত্রীর জামিনের মেয়াদ শেষ হয়।

তবে তাকে আইনি উপায়ে পলাতক ঘোষণা করা হবে কিনা সে ব্যাপারে বিস্তারিত কোনও কিছুই জানাননি পাক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তথ্য সহকারী ফিরদৌস।

এসআইএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]