অরুণাচলে গ্রাম বানাচ্ছে চীনা সেনারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৫ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলওসি) উত্তেজনার মধ্যেই অরুণাচল সীমান্তে চীনা আগ্রাসনের অভিযোগ এনেছে ভারত। উত্তর সুবনসিরি জেলায় নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করে ভারতীয় এলাকায় ঢুকে সেখানে একটি গ্রাম তৈরি করে ফেলেছে চীনা সেনারা। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে এমন তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, তাসরি চু নদীর তীরে বানানো ওই গ্রামে প্রায় ১০১টি ঘর তৈরি করেছে চীনা সেনারা। উপগ্রহ চিত্রের মাধ্যমে ওই গ্রামের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। এই ছবি ২০২০ সালের ১ নভেম্বর তোলা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। এর সঙ্গেই ২০১৯ সালের ২৬ আগস্ট ঠিক একই এলাকার একটি উপগ্রহ চিত্রও প্রকাশ করা হয়েছে।

২০১৯ সালের ছবিতে তাসরি চু নদীর তীরে জনবসতির কোনও চিহ্ন ছিল না। কিন্তু আড়াই মাস আগে তোলা ছবিতে দেখা যাচ্ছে সেখানে বেশ কিছু বাড়ি তৈরি করা হয়েছে। ভারতের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ওই এলাকার অবস্থান এলওসির কমপক্ষে সাড়ে ৪ কিলোমিটার ভেতরে অর্থাৎ ভারতীয় ভূখণ্ডের মধ্যে।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকেও এই খবরের সরাসরি বিরোধিতা করা হয়নি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘গত কয়েক বছরে চীন এলওসি বরাবর পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজ করছে। এ বিষয়ে সাম্প্রতিক কিছু রিপোর্টও হাতে এসেছে’। প্রসঙ্গত, গত নভেম্বরে অরুণাচলের বিজেপি সাংসদ টাপির অভিযাগ করেছিলেন, আপার সুবনসিরি জেলায় এলওসি পেরিয়ে ভারতীয় এলাকায় ঢুকে স্থায়ী কাঠামো বানাচ্ছে চীন।

নভেম্বরেই ডোকলামের অদূরে ভুটান সীমান্তের দু’কিলোমিটারেরও বেশি ভিতরে এসে ‘পাংদা’ নামে একটি গ্রাম তৈরির অভিযোগ উঠেছিল চীনের বিরুদ্ধে। যদিও চীনা পররাষ্ট্র দফতর সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছিল।

টিটিএন/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]