ভারতের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচলে হংকংয়ের নিষেধাজ্ঞা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:২৪ পিএম, ১৯ এপ্রিল ২০২১

ভারতের সঙ্গে সব ধরনের যাত্রীবাহী বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে হংকং। সোমবার মধ্যরাত থেকেই এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হচ্ছে। আগামী ১৪ দিন অর্থাৎ ২ মে পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে বলে জানানো হয়েছে। ভারতে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় হংকং এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে। খবর এনডিটিভির।

মূলত ভারতে ছড়িয়ে পরা করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের কারণেই ১৪ দিনের জন্য এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে হংকং। পাশাপাশি পাকিস্তান ও ফিলিপাইনকে করোনাভাইরাসের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সে কারণে এই তিন দেশ থেকে যেসব যাত্রীরা রোববার রাতে হংকংগামী ফ্লাইটে ওঠার জন্য অপেক্ষা করছিলেন তাদের ফ্লাইটও বাতিল করা হয়েছে।

চলতি মাসে ভিসতারা ফ্লাইট-এ করে আগত ৫০ জন যাত্রীর মধ্যে দু'জন করোনায় আক্রান্ত ছিল। নিয়ম অনুসারে, হংকংয়ে ভ্রমণে আসা সব যাত্রীর বিমানে ওঠার ৭২ঘন্টা আগে করোনা টেস্ট করাতে হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ হলেই দেশটিতে প্রবেশ করা যাবে।

হংকংয়ের প্রশাসনিক নিয়ম অনুযায়ী, সাতদিনের মধ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে যেকোনো ফ্লাইটে আসা পাঁচ কিংবা তার অধিক ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হলে সেই দেশের সকল ফ্লাইট ১৪ দিনের জন্য নিষিদ্ধ করার কথা।

রোববার হংকং সরকার মুম্বাই-হংকং রুটে ভিসতারা ফ্লাইট ২ মে পর্যন্ত স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভিসতারা মুম্বাই-হংকং ফ্লাইটে তিন যাত্রী করোনা পজিটিভ আসার কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অপরদিকে ৪ এপ্রিল দিল্লি-হংকং ফ্লাইটে করে যাওয়া ৪ যাত্রীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। এরপর ৬ এপ্রিল থেকে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত দিল্লি-হংকং রুটে ভিস্তারার ফ্লাইটগুলো নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

হংকং সরকারের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, সম্প্রতি তাদের কমিউনিটিতে এক ব্যক্তির দেহে করোনার নতুন ধরন শনাক্ত হয়েছে। সে কারণে দেশ ও জনগনের স্বার্থে সরকার নতুন নিয়ম ও নিষেধাজ্ঞা জারি করতে বাধ্য হয়েছে।

উল্লেখ্য, ভারতে টানা পাঁচদিন ধরে দুই লক্ষাধিক নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই ভেঙেছে দৈনিক সর্বোচ্চ আক্রান্ত-মৃত্যুর রেকর্ড। সেই ধারা অব্যাহত রয়েছে সোমবারও।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ লাখ ৭৩ হাজার ৮১০ জন, যা গত রোববারের চেয়ে অন্তত ১২ হাজার বেশি। দেশটিতে একদিনে শনাক্ত রোগীর হিসাবেও এটি এযাবৎকালের সর্বোচ্চ।

সংক্রমণের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় মারা গেছে ১ হাজার ৬১৯ জন, যা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে একদিনে সর্বোচ্চ।

ভারতে ইতোমধ্যে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দেড় কোটি ছাড়িয়েছে। এদিক থেকে বর্তমানে বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে তারা। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৭৮ হাজারেরও বেশি মানুষ।

টিটিএন/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]