আফগানিস্তানের নতুন সরকারে ‘উদ্বিগ্ন’ যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১১ এএম, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

আফগানিস্তানে নতুন সরকারের ৩৩ সদস্যের নাম ঘোষণা করেছে তালেবান। এদের কেউ কেউ জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞার তালিকায় রয়েছেন। রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র-ঘোষিত ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ আসামিও। এ কারণে আফগানিস্তানের নতুন এই সরকার নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন মার্কিন প্রশাসন।

তালেবান নতুন সরকার ঘোষণার পরপরই মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের এক মুখপাত্র গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা লক্ষ্য করেছি, (আফগানিস্তানে) ঘোষিত নামের তালিকায় কেবল তালেবান সদস্য বা তাদের ঘনিষ্ঠ সহযোগীরা রয়েছেন এবং কোনো নারী নেই। আমরা (এদের মধ্যে) কিছু লোকের অন্তর্ভুক্তি ও অতীত ইতিহাস নিয়েও উদ্বিগ্ন।

তিনি বলেন, আমরা বুঝতে পারছি, এটিকে তত্ত্বাবধায়ক সরকার হিসেবে উপস্থাপন করেছে তালেবান। তবে, আমরা তাদের কথায় নয়, কাজ দিয়েই বিচার করবো।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) আফগানিস্তানে নতুন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নাম ঘোষণা করে তালেবান। এর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে স্বল্পপরিচিত নেতা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দকে। তার ডেপুটি হিসেবে রয়েছেন সশস্ত্র এই গোষ্ঠীর সহ-প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল গানি বারাদার।

হাক্কানি নেটওয়ার্কের বর্তমান প্রধান সিরাজউদ্দিন হাক্কানিকে করা হয়েছে ভারপ্রাপ্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা ওমরের ছেলে মোল্লা মো. ইয়াকুবকে করা হয়েছে প্রতিরক্ষামন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী হয়েছেন হেদায়েতুল্লাহ বদরী। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন আমির খান মুতাকি।

এদের মধ্যে সিরাজুদ্দিন হাক্কানি এখনো যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের নজরে ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ আসামি। তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব এমন তথ্য দিতে পারলে এক কোটি ডলার (৮৫ কোটি টাকা প্রায়) পর্যন্ত পুরস্কারের ঘোষণা রয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের।

সূত্র: রয়টার্স, এনডিটিভি

কেএএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]