পড়াশোনার জন্য পদ ছাড়লেন মোদী সরকারের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫১ এএম, ০৯ অক্টোবর ২০২১

গত তিন বছর ধরে ভারতে নরেন্দ্র মোদী সরকারের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টার দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন কে ভি সুব্রহ্মণ্যম। কিন্তু তিনি আর এ পদে থাকতে চান না। কারণ, তিনি আবারো গভীর পড়াশোনায় ফিরতে চান। জ্ঞানের জগতে মনোনিবেশ করতে চান। আর সেজন্যই কেন্দ্রীয় সরকারের গুরুত্বপূর্ণ এ পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে সুব্রহ্মণ্যম নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানানোর পর তার প্রশংসা করে তাকে ভবিষ্যতের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

টুইটারে সুব্রহ্মণ্যম জানান, মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়ে তিনি সম্মানিত৷

তিনি লেখেন, তিন বছরের মেয়াদ উত্তীর্ণ করার পর ফের পড়াশোনার জগতেই ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷ দেশসেবা করার সুযোগ পাওয়াটা আমার কাছে দারুণ সম্মানের ছিল৷ সবার থেকে অসাধারণ সমর্থন এবং উৎসাহ পেয়েছি৷

টুইটারে নিজের দীর্ঘ বিবৃতি প্রকাশ করে সেখানে তিনি প্রধানমন্ত্রী মোদী ও অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণকে বিশেষ ধন্যবাদও জানান।

এদিকে অপর টুইটে সুব্রহ্মণ্যমকে ভবিষ্যতের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়ে মোদী লেখেন, কে ভি সুব্রহ্মণ্যমের সঙ্গে কাজ করাটা অসাধারণ অভিজ্ঞতা ছিল৷ তার শিক্ষাগত মেধা, অর্থনৈতিক এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ নীতি বিষয়ে দৃষ্টিভঙ্গি এবং সংস্কারের ইচ্ছা উল্লেখযোগ্য৷ ভবিষ্যতের জন্য তাকে শুভকামনা জানাই৷

মোদী সরকারের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালনের অনুভূতি ব্যক্ত করে তিনি বলেন, নর্থ ব্লকে কাটানো প্রতিটি দিন তার কাছে ছিল বিশেষ সম্মানের৷ তাকে যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তার প্রতি তিনি সুবিচার করার চেষ্টা করেছেন। সরকারের ভেতরে প্রত্যেকের থেকে তিনি সমর্থন ও উৎসাহ পেয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা করে সুব্রহ্মণ্যম লিখেছেন, আমার প্রায় দীর্ঘ তিন দশকের পেশাদারি জীবনে এমন কোনো রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে দেখা হয়নি, যিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর থেকে বেশি অনুপ্রাণিত করতে পারেন৷ বিভিন্ন অর্থনৈতিক নীতিকে যুক্তিপূর্ণভাবে বুঝে তা সাধারণ মানুষের জীবনের মানোন্নয়নে ব্যবহার করেন তিনি৷

এসময় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মতামত জানানো ও সমর্থন করায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকেও ধন্যবাদ জানান সুব্রহ্মণ্যম৷

এমকেআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]