বিশ্বে ফার্নিচার তৈরিতে শীর্ষ ১০-এ মালয়েশিয়া

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৭:০৯ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০২১

বিশ্বে ফার্নিচার (আসবাবপত্র) প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষ ১০-এ রয়েছে মালয়েশিয়া। দেশটির এক্সটারনাল ট্রেড ডেভেলপমেন্ট করপোরেশন (ম্যাট্রেড) এ তথ্য জানিয়েছে।

ম্যাট্রেড বলছে, উৎপাদনের প্রায় ৮০ ভাগ আসবাবপত্র বিদেশে সরবরাহ করছে মালয়েশিয়া। রপ্তানি করা হচ্ছে ১৬০টিরও বেশি দেশে।

ফার্নিচার শিল্পের প্রযুক্তিগত অগ্রগতি এবং ভোক্তার রুচির বৈশ্বিক পরিবর্তন, মূল যন্ত্রপাতি নির্মাতা (ওএম) থেকে আসল নকশা উৎপাদন (ওডিএম), আসল ব্র্যান্ড উৎপাদন (ওবিএম) থেকে পরিবর্তনের সঙ্গে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছে ম্যাট্রেড।

jagonews24

জানা গেছে, ২০২০ সালে মালয়েশিয়ার ফার্নিচার শিল্প রপ্তানি দেখেছে ১২ দশমিক ৮৬ বিলিয়ন রিঙ্গিত, যা এর আগের বছরের তুলনায় ১৫ দশমিক ৫ শতাংশ দ্বিগুণ।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এই শিল্পের বৃদ্ধি একটি শক্তিশালী উৎপাদন ভিত্তির ওপর নির্মিত। যা দক্ষ শ্রমিকের প্রাপ্যতা, চমৎকার নকশা এবং ভালো উৎপাদন অনুশীলনসহ কাঁচামাল সরবরাহকারী থেকে বিকশিত হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় সাধারণ ফার্নিচার তৈরিতে রাবার উডসহ বিভিন্ন স্থানীয় গাছের কাঠ ব্যবহার করা হয়। দেশটি প্রধানত বেডরুম, বসার ঘর এবং রান্নাঘরের ফার্নিচারের পাশাপাশি অন্যান্যও আসবাবপত্র তৈরি করে।

jagonews24

ম্যাট্রেড জানিয়েছে, গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলের শক্ত কাঠ থেকে তৈরি গার্ডেন বা বাইরের আসবাবপত্র ইউরোপীয় ভোক্তাদের কাছ চাহিদা রয়েছে বেশ।

মালয়েশিয়ার আসবাবপত্র বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাজ্যে পাওয়া যায়। এছাড়া এসব আসবাবপত্র স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশ, মধ্য ইউরোপ, দক্ষিণ আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া এবং দক্ষিণ এশিয়ায় রপ্তানির প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে।

জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]