যুক্তরাষ্ট্র-কানাডায় শীতকালীন ঝড়, বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন প্রায় দেড় লাখ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৫৩ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২২

শীতকালীন একটি বড় ঝড়ের কবলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডা। দেশ দুটির বিভিন্ন অংশে ভারি তুষারপাত এবং বরফের স্তুপ জমা হয়েছে। ফলে ৮ কোটির বেশি মানুষের ওপর ঝড় ও তীব্র শীতের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। খবর বিবিসির।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের প্রায় দেড় লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে। এছাড়া কয়েক হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এদিকে ভার্জিনিয়া, জর্জিয়া, নর্থ এবং সাউথ ক্যারোলিনায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

ইউএস ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস (এনডব্লিউএস) জানিয়েছে, কিছু এলাকায় এক ফুটের বেশি (৩০ সেন্টিমিটার) তুষারপাত হতে পারে।

লোকজনকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, তুষারপাত এবং বরফের কারণে ভ্রমণ বিপজ্জনক হয়ে পড়তে পারে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন এবং গাছ পালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

হাইওয়ে পেট্রল জানিয়েছে, শত শত দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যাচ্ছে। কিছু এলাকায় বন্যার পূর্বাভাসও জারি করা হয়েছে। এতে নিউইয়র্ক এবং কানেকটিকাটের কিছু অংশের রাস্তাঘাট এবং বাড়ি-ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রে এই মুহূর্তে কমপক্ষে ১১টি আবহাওয়া সতর্কতা ও পরামর্শ কার্যকর রয়েছে। দেশটির উত্তর-পূর্বাংশে সবচেয়ে বেশি ঠাণ্ডা আবহাওয়া বিরাজ করছে। এসব এলাকায় তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

ওয়াশিংটন ডিসি, ফিলাডেলফিয়া, নিউইয়র্ক সিটি ও বোস্টনসহ উত্তর-পূর্বের উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে তিন ইঞ্চি পর্যন্ত তুষারপাত হতে পারে। তবে সোমবার এসব এলাকায় বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

উত্তর ক্যারোলিনার গভর্নর রয় কুপার বাসিন্দাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সংগ্রহ করতে ও সোমবার পর্যন্ত রাস্তা বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

কানাডার ওন্টারিও প্রদেশেও ঝড়ের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এছাড়া প্রদেশের রাজধানী টরোন্টোতে সাত ইঞ্চি (২০ সেন্টিমিটার) তুষারপাতের পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

টিটিএন/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]