মোদীর মন্ত্রিসভায় পশ্চিমবঙ্গের দু’জন

পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১১:৫৯ এএম, ১০ জুন ২০২৪

ভারতের ১৮তম লোকসভা নির্বাচনে প্রত্যাশিত ফল করতে পারেনি বিজেপি। ২০১৯ সালের নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ৪২ আসনের মধ্যে ১৮টিতে জিতেছিল বিজেপি। কিন্তু এবার তারা জিতেছে মাত্র ১২ আসনে, খুঁইয়েছে মূল্যবান ছয়টি আসন। পশ্চিমবঙ্গে শক্তি হারালেও এ বিষয়ে অনেকটাই নমনীয় বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তার প্রতিফলন দেখা গেলো মন্ত্রি পরিষদের শপথের দিনেই।

আগের দু’বার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলেও এবার এনডিএ শরিকদের হাত ধরে কেন্দ্রে সরকার গঠন করেছে বিজেপি। রোববার (৯ জুন) দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। তার পাশাপাশি শপথ নিয়েছেন মন্ত্রিসভার আরও ৭১ সদস্য। এদের মধ্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ৩০ জন হয়েছেন, পাঁচজন স্বতন্ত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ৩৬ জন প্রতিমন্ত্রী।

আরও পড়ুন>>

মোদীর তৃতীয় মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেয়েছেন একঝাঁক তরুণ। পশ্চিমবঙ্গে ফলাফল ভালো না হলেও রাজ্যটি থেকে দু’জন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। তারা হলেন শান্তনু ঠাকুর এবং সুকান্ত মজুমদার।

বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের দু’বারের সংসদ সদস্য মতুয়া মহাসংঘের নেতা শান্তনু ঠাকুর। নরেন্দ্র মোদীর আগের মন্ত্রিসভায় নৌপরিবহন ও জলপথ প্রতিমন্ত্রী ছিলেন তিনি। এ নিয়ে টানা দু’বার কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী হলেন শান্তনু।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, মতুয়া সম্প্রদায়ের ভোট ব্যাংকের কথা মাথায় রেখেই শান্তনু ঠাকুরকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রাখা হয়েছে। তবে তাকে পূর্ণ মন্ত্রী না করায় আশাহত হয়েছেন অনেক সমর্থক।

রোববার প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির সভাপতি সুকান্ত মজুমদারও। বালুরঘাট থেকে দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেও মোদীর মন্ত্রিসভায় প্রথমবার জায়গা পেলেন তিনি।

ডিডি/কেএএ/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।