কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করছে ফাহিমের দেশিফার্মার

বেনজির আবরার
বেনজির আবরার বেনজির আবরার , ফিচার লেখক
প্রকাশিত: ১০:১৪ এএম, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

প্রযুক্তির কল্যাণে দেশ অনেকদূর এগিয়ে গেলেও কৃষিপ্রধান বাংলাদেশে কৃষকের দুঃখ-দুর্দশা যেন আগের মতোই আছে। কৃষিবান্ধব ব্যবস্থাপনা না থাকায় সম্ভাবনাময় এ সেক্টর হারাচ্ছে তার অতীত গৌরব। সম্প্রতি সম্ভাবনাময় এ সেক্টরে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো যুক্ত হয়েছে ‘দেশিফার্মার’ নামে উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান।

প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা সৈয়দ মোহাম্মদ ফাহিম। দেশিফার্মার বাংলাদেশের প্রথম কোল্ড চেইন এবং প্রযুক্তিনির্ভর ফ্রেশ প্রোডাক্ট সাপ্লাই চেইন, যা গ্রামীণ কৃষকদের সরাসরি খুচরা বিক্রেতাদের সঙ্গে সংযুক্ত করে। পাশাপাশি কৃষক, খুচরা বিক্রেতা এবং ভোক্তাদের জন্য সুবিধা নিশ্চিত করছে।

সিন্ডিকেটের উপর নির্ভর না হয়ে কৃষকের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিতকরণে কাজ করছে দেশিফার্মার। কৃষকদের জন্য নির্দিষ্ট জায়গায় একটি ‘ফার্মার্স পয়েন্ট’ আছে; যেখানে কৃষকদের থেকে উৎপাদিত পণ্য সরাসরি ফার্মার্স পয়েন্টে কেনার ব্যবস্থা থাকছে। তাছাড়া বর্তমান বাজার মূল্যের চেয়ে ২৫% লভ্যাংশে বিক্রি করতে পারছেন তারা।

fram1

কৃষিকাজ সংক্রান্ত খরচ কমানো এবং তাদের মুনাফা বাড়ানোর বিভিন্ন পরামর্শও পাওয়া যাচ্ছে এ পয়েন্টে। এছাড়াও প্রতিটি হাবে আছে একটি করে বৈঠকখানা। যেখানে কৃষকরা আড্ডা-গল্পের মধ্যদিয়ে তাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরতে পারবেন। শুধু কৃষক নন, খুচরা বিক্রেতা থেকে শুরু করে এ সেক্টরের উন্নয়নের কথা ভেবেই কাজ করছে দেশিফার্মার।

প্রযুক্তিনির্ভর এ সেক্টরে আছে ফার্মার্স পয়েন্টে না এসেও ঘরে বসেই বিভিন্ন পরামর্শ কিংবা উৎপাদিত পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা। ‘ফার্মার্স অ্যাপ’র মধ্য দিয়ে তারা যে কোনো সমস্যা জানাতে পারবেন। যে কোনো পরামর্শ পাবেন ঘরে বসেই। এছাড়াও গ্রামীণ প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোয় কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করছে দেশিফার্মার।

এসইউ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]