অরিত্রির আত্মহত্যা : শিক্ষক হেনাকে পুনর্বহালের বিরুদ্ধে আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩৪ পিএম, ২৪ জুলাই ২০১৯

ভিকারুননিসা নূন স্কুলের শিক্ষার্থী অরিত্রিকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি হাসানা হেনাকে শিক্ষক হিসেবে পুনর্বহালের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করেছেন আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ। একই সঙ্গে শিক্ষিকার নাম চার্জশিট থেকে কেন বাদ দেওয়া হয়েছে তাও জানতে চেয়ে রুল জারির নির্দেশনা চেয়েছেন তিনি।

বুধবার (২৪ জুলাই) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ এ আবেদন করেছেন বলে জাগো নিউজকে তিনি নিজেই নিশ্চিত করেছেন। আবেদনে বিবাদীরা হলেন- শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, শিক্ষা ভবনের চেয়ারম্যান, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক, জেলা প্রশাসক (ডিসি), ভিকারুন্ননিসা নূনের এডহক কমিটি, স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিন্সিপাল ও শিক্ষিকা হাসনা হেনা।

এর আগে নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীকে আত্মহত্যার প্ররোচনার দেওয়ার অভিযোগে শ্রেণি শিক্ষক হাসনা হেনাকে উত্তরা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। পরে তিনি জামিনে মুক্তি পান।

এর আগে ঢাকার শান্তিনগরের বাসায় নিজের ঘরে দরজা বন্ধ করে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করে শিক্ষার্থী অরিত্রি। তার স্বজনদের দাবি, মোবাইল দিয়ে নকল করার ঘটনার পর অরিত্রির বাবা-মাকে ডেকে নিয়ে ‘অপমান করেছিলেন’ অধ্যক্ষ। সে কারণে ওই কিশোরী আত্মহত্যা করে। আত্মহত্যার ঘটনার পরের দিন ভিকারুননিসা নূন স্কুলের প্রভাতী শাখার প্রধান জিনাত আরা হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

একই দিন রাতে অরিত্রিকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে মামলা করেন তার বাবা দিলীপ অধিকারী। এতে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতী শাখার প্রধান জিনাত আক্তার ও শ্রেণি শিক্ষিকা হাসনা হেনাকে দায়ী করা হয়।

এফএইচ/আরএস/এমকেএইচ