শহিদ আজাদের দুটি কবিতা

সাহিত্য ডেস্ক
সাহিত্য ডেস্ক সাহিত্য ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:১৪ পিএম, ২৫ জুন ২০২২

ভালোবাসার পঙক্তিমালা

(উৎসর্গ: যে আমাকে রুমির কাব্য শোনাবে বলেছিল)

সেই সুশোভিত মুখ এখনো জড়ায় সুখ হৃদয়ের আরশিতে,
ঝরায় বৃষ্টি-বাদল খুলে মনের আগল নিকানো উঠোনে।
হবে নাকি দেখা যখন থাকি একা ভাবি মনে মনে,
যদি তুমি আসো আমায় ভালোবাসো ভেঁজাবো বৃষ্টিতে।

জানি না কোন ভুলে আমায় গেলে ভুলে তবু মনে পড়ে,
খালি বালতির মতো কষ্ট সয়ে যত পড়ে আছি একা।
তৃষ্ণায় শুকিয়ে কাঠ এ যেন গড়ের মাঠ তবু নাই তার দেখা,
তবে কোনো একদিন জীবন হবে রঙিন আছি তো সেই ঘোরে।

বলেছিলে একদিন বাজাবে সুখের বীণ রুমির কাব্য বলে,
ছিলাম সে আশাতে হৃদয়টা ভাসাতে একান্ত আনমনে।
রাখলে না সে কথা পুরো নীরবতা দুঃখ ক্ষণে ক্ষণে,
জেগেছিল আশা পেলাম না ভরসা ওই ধোঁয়াশার ছলে।

বৃষ্টিভেজা উঠোন এখনো কাঁদে ক্ষণ সব যাতনা সয়ে,
ভুলতে পারে না মুখ যতই জড়াক না দুঃখ বিবাগী হৃদয়ে।

****

শুধু ভুল বুঝো না

আমায় ছুঁয়ে দিয়েই করলে সর্বনাশ!
নিজের অজান্তেই হলাম যে পরবাস।
ইচ্ছের আগুনে পুড়ে হলাম অঙ্গার!
চেতনায় বাজলো বাঁশির সুর বারবার।
বসন্ত বাতাসে দুলে উঠলো হৃদয়,
বুকের ভেতরে ধুকধুক অজানা ভয়।

চুমুতে ভরালে জড়ালে না আমায়,
দ্বিধান্বিত আমি কে নেবে তার দায়?
চুপচাপ টুপটাপ ঝরে পড়লো বকুল,
ঢেউয়ের তালে ভাঙলো যেন নদীর কূল।
শিহরণে আনমনে গেলাম হারিয়ে
নির্বাক আমি গেলাম থমকে দাঁড়িয়ে।

তবুও তোমাকে কুর্ণিশ ও আমার অদিতি,
অপেক্ষায় থাকবো যতদিন আসবে না তিথি।
কখনো তন্দ্রাহারা হয়ো নাকো তুমি,
চাই না নষ্ট হোক তোমার উর্বর ভূমি।
নদীতে জোয়াড় এলেই কাটবো সাঁতার,
শুধু ভুল বুঝো না এটুকুই অনুরোধ আমার।

এসইউ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]