আগামী বছরের জুনের মধ্যে ডিজিটালাইজড হবে ক্যাবল নেটওয়ার্ক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৭ পিএম, ০৬ মে ২০১৯

আগামী বছরের জুনের মধ্যে ক্যাবল নেটওয়ার্ক ডিজিটালাইজড হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেছেন, ঢাকা ও চট্টগ্রামে ডিজিটালাইজডের কাজের অনেক অগ্রগতি হয়েছে। আশা করছি এ বছরের মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রামের কাজ শেষ হবে। আর আগামী বছরের জুনের মধ্যে সারা দেশের ক্যাবল নেটওয়ার্ক ডিজিটালাইজড হবে।

সোমবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বেসরকারি টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের (অ্যাটকো) সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা জানান। এ সময় অ্যাটকোর সভাপতি ও মাছরাঙ্গা টিভির অঞ্জন চৌধুরী, অ্যাটকোর সদস্য ইকবাল সোবহান চৌধুরী, মোজাম্মেল বাবু, দেশ টিভির আরিফুল রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আজ আমরা চারটি বিষয়ে আলোচনা করেছি। এর মধ্যে দুটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এক হলো দেশিয় টেলিভিশনগুলোকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে যে সকল টেলিভিশন আগে সম্প্রচার হয়েছে, তাদের আগে রেখে একটি সিরিয়াল ভিত্তিক তালিকা করা। দ্বিতীয়টি হলো ক্যাবল নেটওয়ার্ক সিস্টেম ডিজিটালাইজড করা।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে চ্যানেল সম্প্রচারের ক্ষেত্রে বিদেশি চ্যানেলগুলোকে বেশি প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তিনি বেসরকারি টেলিভিশনের একটি সিরিয়াল ভিত্তিক তালিকা করে জমা দিতে বলেছেন। এ জন্য আগামীকালের ভেতরে একটি তালিকা তৈরি করে আ্যাটকোকে বাণিজ্য ও তথ্য মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া ক্যাবল নেটওয়ারকিং সিস্টেম ডিজিটাল না হওয়ায় সরকার প্রচুর রাজস্ব হারাচ্ছে। তাই আগামী বছরের জুনের মধ্যে সারা দেশের ক্যাবল নেটওয়ার্ক সিস্টেম ডিজিটালাইজড হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ক্যাবল নেটওয়ার্ক সিস্টেমকে ডিজিটাল করতে যে খরচ হবে তা ক্যাবল অপারেটদের বহন করতে হবে। তবে আমদানি পর্যায়ে কিছু শুল্ক সুবিধা দেয়া হবে। এছাড়া আমরা তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করবো।

অ্যাটকোর সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী বলেন, ক্যাবল নেটওয়ার্ক ডিজিটাল করা হলে সরকার, বেসরকারি টেলিভিশন মালিক ও ক্যাবল ওপারেটর এই তিন পক্ষই লাভবান হবেন। বর্তমানে কতজন গ্রাহক আছে সরকার তা জানে না। ডিজিটাল হলে সরকার গ্রাহক সম্পর্কে জানতে পারবে এবং রাজস্ব বাড়বে। আর টিভি চ্যানেলগুলোর সিরিয়ালের বিষয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে কালকের মধ্যে একটি তালিকা পাঠানো হবে। সম্প্রচারের তারিখ অনুযায়ী এ তালিকা করা হবে। এর জন্য একটি নীতিমালাও রয়েছে। নীতিমালা বিবেচনায় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে অঞ্জন চৌধুরী বলেন, বেসরকারি টিভিগুলোর ব্যবসা মন্দার কারণে রিপোর্টারদের ছাঁটাই করা হচ্ছে। তবে এ ছাঁটাই যেন আইন অনুযায়ী হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। রিপোর্টারদের যেন তাদের ন্যায্য পাওনা দিয়ে দেয়া হয়। আইনগতভাবে তাদেরকে বিদায় করতে হবে বলে জানান তিনি।

এমইউএইচ/এমএসএইচ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :