‘সাংবাদিকতায় অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন মানিক মিয়া’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৮ পিএম, ০১ জুন ২০২২

সাংবাদিকতায় অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া। বাংলাদেশে যতদিন সাংবাদিকতা থাকবে, সংবাদপত্র থাকবে, ততদিন মানিক মিয়ার নাম কোনো না কোনোভাবে উচ্চারিত হবে।

বুধবার (১ জুন) রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে দৈনিক ইত্তেফাকের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়ার ৫৩তম মৃত্যুবার্ষিকীর এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান।

তিনি বলেন, সাংবাদিকতায় যারা কাজ করবে, কোনো না কোনো পর্যায়ে, অনুপ্রেরণা ও চেতনার অফুরান উৎস হিসেবে তারা মানিক মিয়ার নাম শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণে মানিক মিয়া কাজ করেছেন।

আখতারুজ্জামান বলেন, জাতির অন্যতম নির্ভীক সাংবাদিকতার পথিকৃৎ মানিক মিয়া। বঙ্গবন্ধুর লেখায় মানিক মিয়ার নাম উল্লেখ আছে। বঙ্গবন্ধু বহু মানুষকে চিনতেন। তাদের মধ্যে কাউকে হক সাহেব, কাউকে বা ভাসানী সাহেব সম্বোধন করতেন তিনি। সবার নাম কিন্তু বইয়ে লিখেননি বঙ্গবন্ধু।

jagonews24

‘কারাগারের রোজনামচায় বঙ্গবন্ধু লিখেছেন মানিক ভাই। মানিক মিয়াকে জাতির পিতা সবসময় শ্রদ্ধা করতেন এবং তার অবদানের কথা স্বীকার করতেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নানাভাবে যে অনুপ্রেরণা ও উৎসাহ জুগিয়েছেন, তা এদেশের মানুষ স্মরণ রাখবে।’

মানিক মিয়া মুসাফির নামে লিখতেন জানিয়ে ঢাবি উপাচার্য আরও বলেন, মুসাফির লিখতেন বাঙালি জাতীয়তাবাদকে উৎসাহিত করতে। মুসাফির লিখতেন বাংলার অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য। তার লেখা রাজনীতিবিদদের অনুপ্রেরণা জোগাতো। গাইডিং প্রিন্সিপল (নির্দেশক নীতি) হিসেবে মানিক মিয়ার লেখা কাজ করতো।

‘তিনি কী ধরনের মূল্যবোধে নিজেকে ধারণ করতেন এতেই তা বুঝা যায়। তার মধ্যে বাস্তব মূল্যবোধের প্রকট চিত্র দেখা যেতো। অন্যদের সম্মান জানানোর যে গুণ মানিক মিয়ার মধ্যে ছিলো সেটি তার সন্তানদের মধ্যেও দেখা গেছে।’

‘ছয় দফা প্রণয়নে যে কয়জন মানুষ অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন তার মধ্যে মানিক মিয়া উল্লেখযোগ্য। ইত্তেফাকের মাধ্যমে ছয় দফা গণমানুষের কাছে পৌঁছে দেন তিনি। এর জন্য আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে তখন তাকেও গ্রেফতার করা হয়। ইত্তেফাক বন্ধ করে দেওয়া হয়।’

এদিন 'নির্ভীক সাংবাদিক-সম্পাদক তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম' শীর্ষক আলোচনার আয়োজন করে বাংলাদেশ মানবাধিকার সাংবাদিক সংস্থা নামের একটি সংগঠন। এতে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি এস এম জামাল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিকসহ অন্য নেতারা।

এমআইএস/এমপি/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]