‘জাতিসংঘে বাংলা’ দাবি উঠল প্রভাতফেরিতেও

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫১ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ এমন দাবি উঠেছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের প্রভাতফেরিতেও। জাতিসংঘের সপ্তম দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে বাংলাকে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানিয়েছে একুশের প্রভাতফেরিতে অংশ নেয়া দেশের শীর্ষ অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কম পরিবার। এ দাবির প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন প্রভাতফেরিতে অংশ নেয়া অন্যরাও।

‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ দাবিতে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে অনলাইন ক্যাম্পেইন চালিয়ে আসছে জাগোনিউজ২৪.কম। ইতোমধ্যেই দাবির প্রতি সমর্থনে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। এ উপলক্ষে অমর একুশে বইমেলা প্রাঙ্গণেও জাগোনিউজ২৪.কম-এর স্টলে বুথ সংযোজন করা হয়েছে। সেখানে গিয়ে যে কেউ অনলাইনে ভোট দিয়ে দাবির প্রতি সমর্থন জানাতে পারছেন।

provat-feri

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে বুধবার সকাল আটটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসি মোড়ে সমাবেত হন জাগো নিউজের সংবাদকর্মীরা। ‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ এমন স্লোগান সংবলিত টি-শার্ট পরে ও ব্যানার নিয়ে জাগো নিউজ পরিবারের সদস্যরা প্রভাতফেরিতে অংশ নিতেই সবার দৃষ্টি কাড়ে। এ সময় দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে প্রভাতফেরিতে অন্যরাও অংশ নেন।

‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ এমন স্লোগান দেখে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাহির উদ্দিন। বলেন, এ দাবিতে প্রত্যেক বাঙালিকে সরব হতে হবে। রক্ত দিয়ে আমাদের পূর্বসূরিরা মায়ের ভাষার অধিকার রক্ষা করে গেছেন। আমরা যৌক্তিক দাবিতে সোচ্চার হয়ে বাংলাকে বৈশ্বিক রূপ দিতে চাই।

provat-feri

জাগো নিউজের সম্পাদক সুজন মাহমুদ বলেন, কোনো একটি শুভ কাজের জন্য কাউকে না কাউকে এগিয়ে যেতে হয়। আমরাও সেই এগিয়ে থাকা দলে থাকতে চাই। বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষার আন্দোলনে আমরাও সাক্ষী হতে চাই।

তিনি আরও বলেন, বাংলা ভাষা আজ অনেক সমৃদ্ধ। এ ভাষাতেই ১৯১৩ সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নোবেল পুরস্কার পান। বিশ্বে ৩০ কোটির অধিক মানুষ বাংলায় কথা বলে। বাংলা ভাষার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা রয়েছে। সংগত কারণে জাতিসংঘে বাংলার ব্যবহার সময়ের দাবি।

provat-feri

জাগো নিউজের প্রধান বার্তা সম্পাদক মহিউদ্দিন সরকার বলেন, ইন্টারনেট প্রযুক্তির ছোঁয়ায় বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে অভাবনীয় গতিতে। প্রযুক্তির কবলে পড়ে অনেক ভাষা-সংস্কৃতিই হুমকির মুখে। আমরা আমাদের অধিকার রক্ষায় সোচ্চার। যেমন অধিকার রক্ষার পথ দেখিয়েছেন ১৯৫২ সালে সালাম, রফিক, জব্বাররা।

তিনি বলেন, আমরা সব ভাষার প্রতিই শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি। সব ভাষার অধিকার রক্ষায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে এমনটি সময়ের দাবি। আর যৌক্তিক বিবেচনায় জাতিসংঘ সপ্তম দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে বাংলাকে গ্রহণ করবে, এটি আমাদের প্রাণের দাবি।

provat-feri

উল্লেখ্য, বাংলাকে জাতিসংঘের সপ্তম দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে গ্রহণ করার দাবিতে চলছে ‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ অনলাইন ক্যাম্পেইন। এ ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন আপনিও। আবেদন করতে ভিজিট করুন : www.jagonews24.com/makebanglaofficial

এএসএস/জেডএ/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :