মাইজভান্ডারি দরবার শরিফে মিললো গাঁজা-ফেনসিডিল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:০৬ এএম, ০৬ জুন ২০১৮

রাজধানীর খিলগাঁও মেরাদিয়া এলাকায় তৈয়্যবিয়া মাইজভান্ডারির খানকা শরিফ থেকে গাঁজা-ফেসসিডিলসহ নানা ধরনের মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে র‍্যাব। এসময় উপাসনার ভান ধরে থাকা ১১ জন মাদকসেবনকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও সরকারি ছয় কাঠা খাসজমি দখল করে এই আসর চলতো। জমিগুলো উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে র‍্যাবের তিনটি দল এই অভিযানে অংশ নেয়। অভিযানের নেতৃত্ব দেন র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম।

র‌্যাব-৩ এর মেজর মারুফ আব্দুল্লাহ বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এই দরবারটিতে অভিযান চালানো হয়। দরবারের বিভিন্ন জায়গায় সেবন ও বিক্রির জন্য মজুদ করে রাখা গাঁজা ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘদিন থেকে এখানে গাঁজা ও ফেনসিডিলের আসর বসতো। হাতেনাতে আটকের পর তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের ছয় মাস থেকে এক বছরের দণ্ড দেয়া হয়।

অভিযানের সময় উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খিলগাঁওয়ের দক্ষিণ বনশ্রী জি-ব্লকের ছয় নম্বর রোডের মাঝামাঝি হিন্দুপাড়ায় মাইজভান্ডারটি অবস্থিত। এটি তরিকত ফেডারেশনের খিলগাঁও থানা সভাপতি সেলিম ভুঁইয়া দরবার শরিফ পরিচালনা করেন। দলের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি ও সৈয়দ রেজাউল হক চাঁদপুরী। দরবারটি নজিবুল বশরের ছেলে তৈয়বুল বশরের নামে প্রতিষ্ঠা করা হয়। দরবার শরিফের নাম দিয়ে প্রতিনিয়তই মাদক সেবন করার পাশাপাশি মাদক কেনাবেচাও হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম জাগো নিউজকে বলেন, অবৈধভাবে দখল করা সরকারি জমিটি উদ্ধার করা হয়েছে। আগামীকাল সকালে ঢাকা জেলা প্রশাসন জমিটি বুঝে নেবে।

এর আগে মঙ্গলবার মোহাম্মদপুরের শিয়া মজসিদ এলাকার কয়েকটি বস্তিতে মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে আটক করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

এআর/জেইউ/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]