বন্ধ শপিং মলে হাজারো মানুষের ঢল

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৫৩ পিএম, ১৮ জুন ২০১৮ | আপডেট: ১০:০০ পিএম, ১৮ জুন ২০১৮

ঈদের ছুটিতে রাজধানীর পান্থপথের অভিজাত বসুন্ধরা শপিং মল বন্ধ থাকলেও সোমবার (১৮ জুন) বিকেলে হাজারো মানুষের ঢল নামে।

স্বাভাবিক সময়ে শপিং মলটির নিচতলা থেকে আটতলা পর্যন্ত শত শত দোকানে জ্বলে থাকা হাজারো বৈদ্যুতিক বাতিতে চারপাশে ঝলমল করলেও মার্কেট বন্ধ থাকায় ঘুটঘুটে অন্ধকারাচ্ছন্ন পরিবেশ বিরাজ করছে। কিন্তু ব্যতিক্রম শপিং মলের ৯ তলা। এ ফ্লোরের ফুডকোর্ট, টগি ওয়ার্ল্ড ও সিনে কমপ্লেক্সে বিভিন্ন বয়সী নারী, পুরুষ ও শিশুর উপস্থিতিতে প্রাণবন্ত পরিবেশ বিরাজ করতে দেখা যায়।

mall1

সরেজমিনে দেখা গেছে, সন্ধ্যায় মার্কেটের সামনের সিড়িতে পরিবার পরিজন নিয়ে অসংখ্য মানুষ খোশগল্পে মশগুল। ভেতরে প্রবেশে একটি গেট খোলা রয়েছে। ভেতরে অন্ধকার পরিবেশ থাকলেও চলন্ত সিঁড়ি ও লিফট চালু রাখা হয়েছে। শত শত নারী, পুরুষ ও শিশুদের কেউ চলন্ত সিঁড়িতে চড়ে আবার কেউবা লিফটে চড়ে ৯ তলায় যাচ্ছেন।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে রাজধানীর কমলাপুর থেকে আসা দেলোয়ার হোসেন জানান, ঈদ উপলক্ষে রাজধানীর বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্র শিশুপার্ক, চিড়িয়াখানা, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ জাদুঘর ও জাতীয় জাদুঘরে হাজারো মানুষের ভিড়। এ ছাড়া আজ গরমও বেশি। তাই স্ত্রী ও দুই সন্তানকে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত টগি ওয়ার্ল্ডের বিভিন্ন রাইডে চড়াতে নিয়ে এসেছেন। লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ভেতরে ঢুকলেও সন্তানদের খুশি দেখে ভালো লাগছে বলে জানান তিনি।

mall1

৯ তলার ফুডকোর্টগুলোতে উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। অনেকেই টগি ওয়ার্ল্ডে কিম্বা সিনে কমপ্লেক্সে সিনেমা দেখে বিভিন্ন ধরনের ফাস্ট ফুড খাচ্ছেন।

আলিসা নামের এক গৃহবধূ জানান, বসুন্ধরার ফুডকোর্টে খাবারের দাম একটু বেশি হলেও এখানকার ইন্ডিয়ান ফুড খেতে বাচ্চারা খুব পছন্দ করে। তাই এখানে এলে ইন্ডিয়ান বিভিন্ন খাবার না খেয়ে ফিরেন না।

mall1

ফাস্ট ফুডের পাশাপাশি অনেককেই একশ টাকা দামের আইসক্রিম ও ১৫০ টাকা মূল্যে স্ট্রবেরি ও গ্রিন ম্যাংগোসহ বিভিন্ন ধরনের জুস কিনে খেতে দেখা যায়।

বসুন্ধরা শপিং মলের এক কর্মকর্তা জানান, ঈদের দিন থেকে ২০ জুন পর্যন্ত লেবেল ১-৭ বন্ধ থাকবে। তবে প্রতিবছরেরর মতো ঈদের দিন থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত শপিং মলের লেবেল-৯ এর ফুডকোর্ট, টগি ওয়ার্ল্ড ও সিনে কমপ্লেক্স খোলা রয়েছে। ২৪-২৮ জুন এ লেবেলের দোকান বন্ধ রেখে ২৯ জুন পুনরায় চালু হবে।

এমইউ/এএইচ/এমএস