বাউল গানের সুরে ডেঙ্গু সচেতনতায় করণীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৩ পিএম, ০২ অক্টোবর ২০১৮

রাজধানীতে মশাবাহিত ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় এলাকাবাসীদের সচেতন করতে প্রতিটি ওয়ার্ডে গানে গানে স্লোগান ও করণীয় সম্পর্কে জানাতে পদক্ষেপ নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)।

এরই ধারাবাহিকতায় ডিএনসিসি এলাকার পাড়া-মহল্লায় মানুষের মাঝে সচেতনামূলক বার্তা পৌঁছানোর পাশাপাশি চলছে বাউল গান।

মঙ্গলবার রাজধানীর গুলশান সংলগ্ন গুদারাঘাট এলাকায় একটি খোলা পিকআপে সামিয়ানা টাঙিয়ে এ কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন শিল্পীরা। এলাকাবাসীকে ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া সম্পর্কে সচেতন করতে গানে গানে বার্তা পৌঁছে দিচ্ছেন তারা।

এছাড়াও লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে গান শুনতে আসা মানুষের মাঝে। লিফলেটে উল্লেখ করা হয়েছে এডিস মাশা বাসাবাড়ির ভিতরে-বাইরে যত্রতত্র পড়ে থাকা পাত্র ও অন্যান্য স্থানে জমে থাকা পরিস্কার পানিতে ডিম পাড়ে। এই কারণে বাড়ির ছাদ, উঠান, বেইজমেন্টের পানির ট্যাংক, নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত চৌবাচ্চা, ওয়াসার পানির মিটার, ব্যবহৃত বালতি, ড্রাম, পানি রাখার মটকা, টব ইত্যাদিতে এক নাগাড়ে তিন দিনের বেশি পানি জমতে দেবেন না।

জনসচেতনমূলক এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে গানে গানে সবাইকে সচেতন করছেন বাউল শিল্পী মোর্শেদ আক্তার।

তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নেয়া এই সচেনতমূলক কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে আমরা সাধারণ মানুষের কাছে ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে করণীয় বার্তা পৌঁছে দিচ্ছি। সেই লক্ষ্যে প্রতিদিন বিভিন্ন ওয়ার্ডে গিয়ে আমরা গান পরিবেশনের মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করছি।

এর আগে গত রোববার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ডিএনসিসির আঞ্চলিক কার্যালয়ের সামনে থেকে সচেতনতামূলক এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্যানেল মেয়র-৩ আলেয়া সারোয়ার ডেইজী।

তিনি বলেন, আমরা ডিএনসিসির পক্ষ থেকে বিশেষ এই কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। আমাদের কাজ হবে গানে গানে জনগণকে সচেতন করা। এই শহরের বেশিরভাগ মানুষই জানেন এডিস মশার বংশবিস্তার ঘটে জমে থাকা স্বচ্ছ পানিতে। তারপরও অনেকেই সচেতন হন না। তাই আমরা নাগরিকদের সচেতন করতে ব্যতিক্রমধর্মী এই কর্মসূচি নিয়েছি। আমাদের প্রতিটি ওয়ার্ডে এই ‘রোড শো’ হবে।

এএস/এমএমজেড/জেআইএম