ইভিএমেই ভোট পড়েছে সবচেয়ে কম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৫৭ এএম, ০২ এপ্রিল ২০১৯

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে ১০৬ উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে ভোট পড়ার হার সবচেয়ে বেশি বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলায়। এখানে ভোট পড়েছে ৭০ দশমিক ৮২ শতাংশ। সবচেয়ে কম ভোট পড়েছে ফেনীর সদর উপজেলায়। এ উপজেলায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোট পড়েছে ১৩ দশমিক ৫০ শতাংশ।

ফেনীর সদর উপজেলায় মোট ভোটার ছিলেন ৩ লাখ ৪৮ হাজার ২৫৯ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৪৭ হাজার ১৮ জন। ফেনীর সদর উপজেলার পর কমের দিক থেকে রয়েছে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলা। এ উপজেলার ভোট পড়েছে ১৩ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

চতুর্থ ধাপে ছয় উপজেলায় ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। এর মধ্যে বাগেরহাট ও ময়মনসিংহ সদরে ভোটগ্রহণ হয়নি। এই দুই উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী জয়লাভ করেছেন।

ইভিএমে যে চার উপজেলায় ভোট হয়েছে তার মধ্যে সর্বোচ্চ ভোট পড়ার হার পটুয়াখালী সদরে। ওই উপজেলায় ভোটের হার ৩৭ দশমিক ১৬ শতাংশ। ইভিএমের ভোটগ্রহণ উপজেলাগুলোর মধ্যে কেবল এই একটি উপজেলাতেই ভোটের মোট গড় হারের উপরে গেছে। চতুর্থ ধাপে ভোটের গড় হার ৩৬ দশমিক ৫০ শতাংশ।

ইভিএমে বাকি দুটি উপজেলার মধ্যে মুন্সীগঞ্জ সদরে ভোট পড়েছে ৩০ দশমিক ৭৮ শতাংশ। এই উপজেলায় মোট ভোটার ছিলেন ২ লাখ ৯০ হাজার ৭০৬ জন। ভোট দিয়েছেন ৮৯ হাজার ৩৫৬ জন। এর মধ্যে অবৈধ হয়েছে ১৮৬টি ভোট।

এছাড়া কক্সবাজার সদরে ভোট পড়ার হার ৩৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ। এতে মোট ভোটার ছিলেন ২ লাখ ৫৬ হাজার ৬৪৪ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৮৫ হাজার ৬৪০ জন। এর মধ্যে অবৈধ হয়েছে ২৩৫টি ভোট।

পিডি/আরএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :