নতুন জাহাজের নকশায়ও অনিয়ম!

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১৮ পিএম, ১৫ এপ্রিল ২০১৯

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)-তে ড্রেজিং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়ায় অনিয়ম এবং নৌ-পরিবহন অধিদপ্তরে নতুন জাহাজের নকশা অনুমোদন, সার্ভে সার্টিফিকেট প্রদানে অনিয়মের অভিযোগের সত্যতা মিলেছে।

এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিআইডব্লিউটিএ কার্যালয়ে অভিযান চালায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) এনফোর্সমেন্ট টিম। দুদক টিম অভিযানে জানতে পারে, ড্রেজিং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১০ লাখ টাকার অতিরিক্ত ব্যয়ের জন্য ই-টেন্ডারিং পদ্ধতি থাকলেও ১০ লাখ টাকার নিচে ম্যানুয়ালি টেন্ডার কার্যক্রম পরিচালিত হয়, ফলে এক্ষেত্রে অনিয়মের সুযোগ রয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়। টিম সব ক্ষেত্রেই ই-টেন্ডারিং পদ্ধতি অনুসরণ করার সুপারিশ প্রদান করে।

এদিকে নতুন জাহাজের নকশা অনুমোদনে অনিয়মের অভিযোগ অনুসন্ধানে দুদক টিম জানতে পারে, ২০১৮ সালে ২২০টি নকশা প্রদানের সিদ্ধান্ত থাকলেও নতুন নকশা অনুমোদিত হয়েছে ৩৪৫টি। এক্ষেত্রে অনিয়ম হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে অভিমত ব্যক্ত করে দুদকের এনফোর্সমেন্ট টিম।

এছাড়া আবেদন বিবেচনার ক্ষেত্রে ক্রম না মেনে যারা পরবর্তীতে আবেদন করেছেন তাদেরও ঘুষ-দুর্নীতির বিনিময়ে আগে নকশা পাস করিয়ে দেয়া হয়েছে। অপরদিকে জাহাজের সার্ভে সার্টিফিকেট প্রদানের ক্ষেত্রে অবৈধ অর্থ অর্জনের উদ্দেশ্যে কালক্ষেপণ করা হয় মর্মে দুদকের অনুসন্ধানে জানা যায়।

সার্ভেয়ারদের কোনো রিপোর্ট প্রদানে বাধ্যবাধকতা না থাকায় তারা এ বিষয়ে স্বেচ্ছাচারিতার আশ্রয় নেন। দুদক টিম, বিআইডব্লিউর চিফ ইঞ্জিনিয়ারকে সুপারিশ প্রদান করে যে, সার্ভেয়ারদের সাপ্তাহিক ও মাসিক ভিত্তিতে রিপোর্ট প্রদান করতে হবে।

এদিকে বিএসটিআই বিভিন্ন কার্যক্রমে অনিয়ম খতিয়ে দেখতে এর প্রধান কার্যালয়ে অভিযান পরিচালনা করে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম। টিম ওই কার্যালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে।

এদিকে বরগুনায় ঝুঁকিপূর্ণ প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহে শিক্ষার্থীদের জীবনের ঝুঁকিতে শ্রেণি কার্যক্রম চলছে- এমন অভিযোগ অনুসন্ধানে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম অভিযান পরিচালনা করে। দুদক টিম নির্বাহী প্রকৌশলী, এলজিইডি ও উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। তারা জানান, ঝুঁকিপূর্ণ ভবনসমূহের তালিকা নির্ণয়ে দুজন উপ-সহকারী প্রকৌশলী ও উপজেলা শিক্ষা অফিসের প্রতিনিধির সমন্বয়ে একটি টিম গঠন করা হয়েছে। টিম আগামী এক সপ্তাহের ভেতর ঝুঁকিপূর্ণ ভবনসমূহের তালিকা প্রণয়নপূর্বক একটি প্রতিবেদন পেশ করবে এবং ওই প্রতিবেদনে যেসব ভবন মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত হবে, সেই ভবনগুলোতে শ্রেণিপাঠ বন্ধ করে তাৎক্ষণিকভাবে সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হবে।

দিনাজপুর সদর ভূমি অফিসে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করে দুদক টিম। টিম সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে জানান। ওই অফিসের যেসব কর্মচারী সেবাপ্রার্থীদের হয়রানি করেন তাদের সতর্ক করা হয়।

সিলেট জেলার দক্ষিণ সুরমা উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিসে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে একটি অভিযান পরিচালনা করে দুদক টিম। টিম সরেজমিন অভিযানে জানতে পারে, ওই অফিসে বেতন বিলসহ বিভিন্ন বিল প্রক্রিয়াকরণে যে সময় লাগার কথা তার চেয়ে বেশি সময় লাগে। ফলে এ কার্যক্রমে ঘুষ-দুর্নীতির সুযোগ রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়। এ অনিয়ম বন্ধে টিম প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মো. কবির হোসেনকে নির্দেশনা প্রদান করে। তিনি সব ধরনের অনিয়ম নিষ্পত্তিতে তৎপর হওয়ার আশ্বাস দেন।

এদিকে, ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক খাল খননের বরাদ্দ করা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে কিশোরগঞ্জ সদরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা; উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কার্যালয়ে এনআইডি কার্ডের অনলাইন কপি প্রদানে অনিয়ম খতিয়ে দেখতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, নকলা, শেরপুর ও ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক মৎস্যজীবীদের জন্য বরাদ্দকৃত চাল সঠিকভাবে বিতরণ না করার অভিযোগ খতিয়ে দেখতে বরিশালের মেহেদীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসারকে অনুরোধ করে এনফোর্সমেন্ট ইউনিট।

দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন- ১০৬) আসা এসব অভিযোগের ওপর সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নেয়া পদক্ষেপ পরবর্তীতে কমিশনকে অবহিত করা হয়।

এমইউ/এমএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]