রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নম্বরপ্লেট না লাগালে ব্যবস্থা নেবে বিআরটিএ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৫৯ পিএম, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

মোটরযানে রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নম্বরপ্লেট ও আরএফআইডি ট্যাগ নম্বরপ্লেট সংযোজনে বিশেষ ক্র্যাশ প্রোগ্রাম চালু করছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। সংস্থাটির পরিচালক (প্রকৌশল) স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নম্বরপ্লেট ও আরএফআইডি ট্যাগবিহীন মোটরযানে নম্বরপ্লেট সংযোজনের লক্ষ্যে আগামী ২৬-২৭ এপ্রিল (শুক্র ও শনিবার) এবং ৩ ও ৪ মে (শুক্র ও শনিবার) ক্র্যাশ প্রোগ্রাম নেয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবাইকে ক্র্যাশ প্রোগ্রামের আওতায় এই সুযোগ নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ ও আরএফআইডি ট্যাগবিহীন মোটরযানের বিরুদ্ধে শিগগিরই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিআরটিএ ঢাকা মেট্রো-১ (মিরপুর ১৩), ঢাকা মেট্রো-২ (ইকুরিয়া কেরানীগঞ্জ), ঢাকা মেট্রো-৩ (দিয়াবাড়ি, উত্তরা) সার্কেল অফিসে নম্বরপ্লেট সংযোজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। যারা এসব সংযোজন করেননি তাদের অতিসত্বর অথবা ক্র্যাশ প্রোগ্রামের আওতায় উল্লেখিত তারিখে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (ফি জমার রশিদ, রেজিস্ট্রেশন/ফিটনেস সার্কিফিকেট ও ট্যাক্স টোকেনের মূল কপিসহ সত্যায়িত ফটোকপি) নিয়ে সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে বিআরটিএ’র পরিচালক (প্রকৌশল) মো. লোকমান হোসেন মোল্লা জানান, সড়ক পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা জোরদারে মোটরযানে রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নম্বরপ্লেট ও রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেনটিফেকেশন (আরএফআইডি) ট্যাগ সংযোজন কার্যক্রম প্রবর্তন করা হয়েছে। ২০১২ সালের ৩১ অক্টোবর থেকে মোটরযানে এগুলো সংযোজন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বিআরটিএ থেকে মোটরযান রেজিস্ট্রেশন করার পর মালিক কর্তৃক মোটরযানে রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নম্বরপ্লেট ও রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেনটিফেকেশন (আরএফআইডি) ট্যাগ সংযোজন না করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে প্রেরণ করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের পূর্বে রেজিস্ট্রেশনকৃত সব মোটরযানের রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নম্বরপ্লেট ও আরএফআইডি ট্যাগ প্রস্তুত হওয়ার পর সংযোজনের জন্য মোবাইলে ফোনে এসএমএস পাঠানো হলেও এগুলো সংযোজনের জন্য অনেকেই হাজির হননি।

মো. লোকমান হোসেন মোল্লা বলেন, এ অবস্থার অবসানকল্পে এই ক্র্যাশ প্রোগ্রামের আয়োজন করে মোটরযান মালিকদের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। এরপরও কেউ যদি মোটরযানে এই নম্বরপ্লেট না লাগান- তাহলে সেই মালিক ও চালকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেইউ/এমএমজেড/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :