সংসদের বাজেট ৩২৮ কোটি, স্পিকারের জন্য কেনা হবে নতুন গাড়ি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৬ পিএম, ২৩ মে ২০১৯

আসন্ন নতুন অর্থবছরে জাতীয় সংসদের জন্য উন্নয়ন ও অনুন্নয়ন খাতে মোট ৩২৮ কোটি ২২ লাখ টাকার প্রাক্কলিত বাজেট অনুমোদন দেয়া হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এ বাজেট ৯.৭১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই বাজেটে সংসদীয় কমিটির সভাপতিদের আপ্যায়ন খরচ বাড়ানো হয়েছে। স্পিকারের জন্য নতুন গাড়ি ছাড়াও কেনা হচ্ছে ১০টি পাজেরো জিপ।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদ সচিবালয় কমিশনের ৩০তম বৈঠকে এ প্রস্তাবিত বাজেট বরাদ্দে অনুমোদন দেয়া হয়।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতার পক্ষে বিরোধীদলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক অংশ নেন। এছাড়া জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বিশেষ আমন্ত্রণে বৈঠকে যোগ দেন।

বৈঠক শেষে শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, আমাদের সংসদ সচিবালয়ে ১০টি পাজেরো জিপ ছিল, সেগুলো ২০০৪ সালে কেনা। গাড়িগুলোর অবস্থা খুবই খারাপ। ওইসব গাড়ি মেরামতে যে খরচ হয় তা অনেক বেশি। তাই নতুন করে ১০টি জিপ গাড়ি কেনার কথা বলা হয়েছে। আমাদের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে ১২ কোটি টাকা রয়ে গেছে, যেটা আমরা খরচ করতে পারিনি। এবার প্রস্তাবিত বাজেটেও ১০ কোটি টাকা রাখা হয়েছে। এসব টাকা সমন্বয় করে গাড়িগুলো কেনা হবে। এছাড়া স্পিকার ঢাকার বাইরে সফরে যাওয়ার জন্য যে পাজেরো জিপটি ব্যবহার করে আসছিলেন সেটিও ১৯৯৬ সালে কেনা। তাই সেই গাড়ি বদলে নতুন গাড়ি কেনার অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতিদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কমিটির সভাপতিরা আপ্যায়ন খরচ বাবদ প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা করে পাবেন। আগে তা ছিল ১২ হাজার। যদিও তারা ২৫ হাজার টাকা দাবি করেছিলেন। এছাড়া সংসদীয় কমিটির বৈঠকে খাবার খরচ জনপ্রতি ১০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০০ টাকা করা হয়েছে।

স্পিকার বলেন, এদিকে দশম সংসদের সংসদ সদস্যদের ১৩১ জন এবার নির্বাচিত হতে পারেননি। তাদের যে ল্যাপটপ দেয়া হয়েছিল সেগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ায় এসব আর ফেরত নেয়া হচ্ছে না।

এইচএস/এমবিআর/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :