ঈদ, তাই এভাবে জীবনবাজি!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৩৬ এএম, ০৩ জুন ২০১৯

পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদ করতে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। ভোগান্তি এড়াতে অনেককেই অগ্রিম টিকিট কাটতে হয়েছে। লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে কেউ টিকিট পেয়েছেন কেউ পাননি। তবুও বাড়ি যেতে হবে। এ জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেকেই ট্রেনের ছাদে উঠছেন।

ekota

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনে দেখা যায়, পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেসে ট্রেনে ঝুঁকিপূর্ণভাবে ছাদে উঠে প্রিয়জনের সান্নিধ্য পেতে বাড়ি ফিরছেন যাত্রীরা। তবে এদিন একতা এক্সপ্রেস ছাড়া অন্য কোনো ট্রেনে যাত্রীদের ছাদে উঠতে দেখা যায়নি।

রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনে সোমবার সকাল ১০টা ২৫ মিনিটের দিকে আসে একতা এক্সপ্রেস। কমলাপুর থেকে আসার সময়ই যাত্রীতে পরিপূর্ণ ছিল ট্রেনটি। তবে ছাদে যাত্রী ছিল না।

ekota

অন্যদিকে একতা এক্সপ্রেসের জন্য বিমানবন্দর স্টেশনে অনেক যাত্রী অপেক্ষা করছিলেন। ট্রেনের ভেতর জনাকীর্ণ দেখে যাত্রীরা লাফিয়ে লাফিয়ে ট্রেনের ছাদে উঠতে থাকেন। অনেকে ঝুঁকিপূর্ণভাবে ট্রেনের ছাদে ওঠেন।

বিমানবন্দর স্টেশনে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার সদস্যরা ছাদে উঠতে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেন যাত্রীদের। তবে তাতে বিশেষ কোনো কাজ হয়নি।

ekota9

অন্য গন্তব্যে যাওয়ার জন্য অপেক্ষমাণ এক যাত্রী তার পাশের জনকে বলছিলেন, ‘যারা একবার ট্রেনে উঠে গেল, তারা বাড়ি যাইতে পারবে। আর এইভাবে না উঠলে, যাবে কীভাবে। মানুষের তো কিছু করার নাই।’

ekota

অপেক্ষমাণ অন্য আরেক যাত্রীকে বলতে শোনা যায়, ‘স্ট্যান্ডিং টিকিট দেয়া উচিত না। স্ট্যান্ডিং টিকিটের লোকগুলাই এভাবে ছাদে উঠতাছে।’

পিডি/বিএ/এমকেএইচ