তামাকজাত পণ্যের ওপর শুল্ক বৃদ্ধির দাবি

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৪৭ পিএম, ১৭ জুন ২০১৯

২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে সকল প্রকার তামাকজাত পণ্যের ওপর সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধি ও সুনির্দিষ্ট করারোপের মাধ্যমে সরকারের রাজস্ব বৃদ্ধি এবং জনস্বাস্থ্য রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন করেছে তামাকবিরোধী সংগঠনগুলো। সোমবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সামনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন এনবিআর-এর সাবেক চেয়ারম্যান ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ, ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস্-এর আব্দুস সালাম মিঞাঁ এবং দ্যা ইউনিয়নের টেকনিক্যাল এডভাইজার সৈয়দ মাহবুবুল আলম তাহিন।

তারা বলেন, উচ্চমূল্য তরুণদের তামাক ব্যবহার শুরু করতে নিরুৎসাহিত করে এবং ব্যবহারকারীদের তামাক ছাড়তে উৎসাহিত করে। তারা দাবি জানিয়ে বলেন- শিশু, কিশোর, যুবক সর্বোপরি সকল স্তরের জনগণের স্বাস্থ্যরক্ষা ও সরকারের রাজস্ব আয় বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১৯-২০ চূড়ান্ত বাজেটে সকল তামাকজাত পণ্যের বিশেষ করে বিড়ি, নিম্ন ও মধ্যম স্তরের সিগারেটের ওপর উচ্চহারে কর আরোপ করতে হবে। এর মাধ্যমে তামাক পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে তা ক্রয় ক্ষমতার বাইরে নিয়ে যেতে হবে। পাশাপাশি সিগারেটের ক্ষেত্রে বিদ্যমান ৪টি মূল্যস্তর বিলুপ্ত করে ২টি মূল্যস্তর (নিম্ন ও উচ্চ) নির্ধারণ করতে হবে।

তারা আরও বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে তামাক কোম্পানিকে ইনপুট ক্রেডিট সুবিধা দেয়ায় কোম্পানিগুলো বছরে প্রায় ৩০০০ কোটি টাকা কর রেয়াত করার সুযোগ পাবে। এই সুবিধা রহিত করার লক্ষ্যে অবিলম্বে তামাক করনীতি প্রণয়ন করতে হবে।

মানববন্ধনটির সার্বিক সহযোগিতায় ছিল ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ও ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস।

উল্লেখ্য, ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, এসিডি, ইপসা, তাবিনাজ, সুপ্র, বিটা, প্রজ্ঞা, ব্যুরো অব ইকনোমিক রিসার্চ, ডব্লিউবিবি ট্রাস্ট, নাটাব, প্রত্যাশা, টিসিআরসি, গ্রাম বাংলা উন্নয়ন কমিটি, বিসিসিপি, এইড ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন তামাকবিরোধী সংগঠনের উদ্যোগে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় একযোগে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এফএইচএস/এসএইচএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :