শুক্রবারের মধ্যে পুরোপুরি প্রস্তুত হবে হজক্যাম্প

রফিক মজুমদার
রফিক মজুমদার রফিক মজুমদার , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৪৩ পিএম, ২০ জুন ২০১৯

১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ হজযাত্রীর জন্য প্রস্তুত হচ্ছে হাজক্যাম্প। আগামী ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার শুরু হবে এ বছরের হজযাত্রা। মঙ্গলবার থেকে হজক্যাম্পে উঠতে শুরু করবেন হজযাত্রীরা। আর তাদের বরণ করতে নানা আয়োজনে প্রস্তুত করা হচ্ছে ক্যাম্প। নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন এখানকার সকল বিভাগে দায়িত্বরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। গত ১০ দিন ধরে চলছে ধোয়ামোছা আর রঙ লাগানোর কাজ। ইতোমধ্যে ঘষামাজা ও রঙ লাগানোর কাজ শেষ পর্যায়ে।

সরেজমিন হজক্যাম্প ঘুরে দেখা গেছে এই চিত্র। পরিচ্ছন্নকর্মীরা বেশ জোরেশোরে ধোয়া-মোছার কাজ করছেন। সামনের ফুল বাগান থেকে শুরু করে ভেতরের সর্বত্র পরিষ্কার করা হচ্ছে। যেসব জায়গা মেরামত করা প্রয়োজন সেসব জায়গায় মেরামতের কাজ করা হয়েছে। শুক্রবারের মধ্যে পুরোপুরি প্রস্তুত হবে হজক্যাম্প।

মেঝেতে পানি ও অ্যান্টিসেপটিক লিকুইড দ্বারা পরিচ্ছন্নতার কাজ সারছিলেন পরিচ্ছন্নকর্মী জাহাঙ্গীর। তিনি জানান, গত সপ্তাহের মঙ্গলবার থেকে তিনি পরিচ্ছন্নের কাজ করছেন। তার সঙ্গে অন্যান্য কর্মীদের মধ্যে রয়েছেন সালাউদ্দিন, আলম, রফিক, খুরশিদ আলম-সহ অন্যান্যরা। কারো চোখেমুখে ক্লান্তির ছাপ না থাকলেও কাজ করছিলেন জোরেসোরে।

দেয়াল ও পিলারে সাদা রঙ লাগাচ্ছিলেন মনির মিয়া। তিনি জানান, হজক্যাম্পের বাইরের সব দেয়ালের রঙের কাজ শেষ হয়েছে। মোট পাঁচজন মিলে শুরু করেছেন ভেতরের দেয়াল ও পিলারে কাজ। পরিচ্ছন্নকর্মীদের বিরামহীন কাজের ফলে হজক্যাম্প এখন ধবধবে পরিষ্কার। এক কথায় পাল্টে যাচ্ছে হজক্যাম্পের চেহারা।

HAJ-CAMP

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শুক্রবারের মধ্যেই কাজ শেষ করতে হবে। তাই চলছে অবিরাম কাজ। দম ফেলার সময় নেই।

হজের প্রথম ফ্লাইট শুরু হচ্ছে আগামী ৪ জুলাই। হজযাত্রীদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিতে আগাম প্রস্তুতি নিচ্ছে হজ কর্তৃপক্ষ। তারা বলছেন, হজযাত্রীদের যেন কোনো ধরনের সমস্যা না হয় সেই লক্ষ্যে সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একযোগে কাজ চলছে।

এ বিষয়ে হজ পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ৪ জুলাই থেকে আল্লাহর মেহমানরা জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়তে শুরু করবেন। আগামী সপ্তাহে সবদিক থেকে আমরা প্রস্তুত হয়ে যাব বলে আশাবাদী।

এবারের হজযাত্রাকে ইতিহাসের সবচেয়ে সফল হজযাত্রা হিসেবে উল্লেখ করেছেন হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন- হাব সভাপতি মো. শাহাদাত হোসেন তসলিম।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, হজ ফ্লাইট শুরুর আগেই বিমান ও সৌদি এয়ারলাইন্সের সিংহভাগ টিকিট শেষ হয়ে গেছে। ৪ জুলাই ফ্লাইট শুরুর আগে সব হজযাত্রীর টিকিট সংগ্রহ শেষ হয়ে যাবে। ভিসা প্রাপ্তির ক্ষেত্রেও বিগত বছরগুলের তুলনায় এবারের পরিস্থিতি ভালো।

উল্লেখ্য, এ বছর ১ লাখ ২৭ হাজারেরও বেশি হজযাত্রী বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব যাবেন হজ করতে। হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সংলগ্ন হাজিক্যাম্প হাজিদের জন্য উড়োজাহাজে চড়ার আগের ক’দিন নিরাপদ স্থান। হজ ফ্লাইটে উঠার আগে দেশের সব হজযাত্রী এ ক্যাম্পে অবস্থান করেন। এরপর যার যার নির্দিষ্ট ফ্লাইট অনুযায়ী আকাশপথে সৌদি আরবের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

আরএম/এসএইচএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :