২ দিনে ৪ নদীর পানি বিপৎসীমার নিচে নামল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৫৬ পিএম, ০৯ আগস্ট ২০২০
ফাইল ছবি

কিছু অঞ্চলে অবনতির পূর্বাভাস থাকলেও এখন দেশে বন্যা পরিস্থিতির প্রতিনিয়ত উন্নতি হচ্ছে। শুক্রবার (৭ আগস্ট) দেশে বন্যাকবলিত জেলা ছিল ১২টি, আজও (রোববার) তাই রয়েছে। তবে শুক্রবার ১২টি নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে থাকলেও আজ আটটি নদীর পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পাশাপাশি ওইদিন ১৬টি স্টেশনে পানি বিপৎসীমার উপরে থাকলেও এখন ১১টি স্টেশনের পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অর্থাৎ দুই দিনের ব্যবধানে চারটি নদী ও পাঁচটি স্টেশনের পানি বিপৎসীমার নিচে নেমেছে। স্বাভাবিকভাবে সেসব অঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতিরও উন্নতি হয়েছে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের ৭ ও ৯ আগস্টের তথ্য বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া যায়।

রোববারের পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদীর পানি কমছে, যা আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উজান মেঘনা অববাহিকার প্রধান নদীগুলোর পানি কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। ঢাকার আশপাশের নদীগুলোর পানি কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

এর প্রভাবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, নাটোর, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, চাঁদপুর, রাজবাড়ী, শরীয়তপুর, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে। এ সময়ে ঢাকা সিটি করপোরেশন সংলগ্ন নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে।

শনিবার (৮ আগস্ট) সকাল ৯টা থেকে রোববার সকাল ৯টা পর্যন্ত সময়ে উল্লেখযোগ্য বৃষ্টিপাত হয়েছে মহেশখোলায় ৭৯ ও সুনামগঞ্জে ৪২ মিলিমিটার। একই সময়ে বাংলাদেশের উজানে অর্থাৎ ভারতের জলপাইগুড়িতে ৯৬ ও দার্জিলিংয়ে ৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

পিডি/বিএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]