কারওয়ান বাজারের হাসিনা মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:৪৪ পিএম, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ফায়ার সার্ভিসের চেষ্টায় এক ঘণ্টা পর রাজধানীর কারওয়ান বাজারের হাসিনা মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টা ১০ মিনিটের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের কন্ট্রোল অপারেটর ফরহাদ হোসেন জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে রাত ৯টা ৮ মিনিটে সেখানে আগুন লাগে। প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। কিন্তু এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

মার্কেটের ব্যবসায়ী ইয়াসিন আরাফাত জুয়েল জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমাদের এখানে একটা খাবারের দোকান ছিল। এই আগুন কতগুলো দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা বলা যাচ্ছে না। তবে কমপক্ষে ৪০-৫০টি দোকান পুড়েছে। এখানে গোডাউন, খাবার হোটেল, মরিচের মিল, বিকাশের দোকান, সেলুন - এসব।’

ফায়ার সার্ভিসের অপারেশন প্রধান লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান রাত ১১টার দিকে জাগো নিউজকে বলেন, ‘সদর দফতরে আমাদের কাছে আগুন লাগার খবর আসে ৯টা ৮ মিনিটে। আমাদের ফায়ার সার্ভিসের প্রথম ইউনিট আসে ৯টা ১৫ মিনিটে। পরবর্তী মোট ১১টি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজে নিয়োজিত ছিল। ১০টার সময় আগুন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। আমরা আশা করি, আগামী ৩০ মিনিটের মধ্যে আমরা পুরো অপারেশন শেষ করতে পারবো। এখন পর্যন্ত আমরা কোনো নিহত বা আহত হওয়ার সংবাদ পাইনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘মার্কেটের দোকানপাট বাঁশ, কাঠ বা টেম্পোরারি সরঞ্জাম দিয়ে তৈরি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায়, এ ধরনের মার্কেটে একবার আগুন লাগলে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। আমরা দেখেছি, যারা কাজ করত দোকানের উপরে তাদের থাকার ব্যবস্থা আছে। সেখানে যে টানা ইলেক্ট্রনিক লাইন আমরা দেখতে পেয়েছি, সেগুলো বিভিন্ন জায়গায় কানেকশন দিয়ে বিচ্ছিন্ন করা আছে। পরিপূর্ণ ধরনের কোনো ইলেক্ট্রনিক লাইন ছিল না। সেখানে ইলেক্ট্রিক লাইনে যদি সমস্যা থাকে, সেখান থেকে কিন্তু ইলেক্ট্রিক শর্টসার্কিট হওয়া সহজ হয়ে যায়। আমাদের ফায়ার সার্ভিসের টিম অতি দ্রুত চারদিক থেকে ঘেরাও করে এবং সেজন্য কেবল ৪০ মিনিটের মধ্যে এরকম একটা স্পর্শকাতর জায়গায় পুরো আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সমর্থ হয়েছি।’

কর্নেল জিল্লুর বলেন, ৪০ থেকে ৪৫টি দোকানের ক্ষতি করেছে আগুন। এ ঘটনা খতিয়ে দেখতে আমরা একটা তদন্ত কমিটিও গঠন করব।

এমইউ/পিডি/এসএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]