নরসিংদীতে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত তিনজন ঢামেকে

ঢামেক প্রতিবেদক
ঢামেক প্রতিবেদক ঢামেক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:০৮ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২১

নরসিংদীর রায়পুরার কাচারিকান্দি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ তিনজন হলেন মো. আবুল হোসেন (৪৫), আবু বক্কর (১৩) ও আব্দুল হামিদ (৫৫)।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) বিকেলে তিনজনকে ঢামেকের জরুরি বিভাগে এনে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে একজন গুলিবিদ্ধ এবং দুজন টেঁটাবিদ্ধ।

তাদের হাসপাতালে নিয়ে আসা আবুল হোসেন জাগো নিউজকে জানান, নরসিংদীর রায়পুরার পাড়াতলী ইউনিয়নের কাচারিকান্দি গ্রামে দু’গ্রুপের মধ্যে ভোরে সংঘর্ষ হয়। এসময় গুলিও ছোঁড়া হয়। সংঘর্ষে প্রায় ৫০ জন আহত হন। দুজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। গুরুতর আহতাবস্থায় তিনজনকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কাচারিকান্দি গ্রামে শাহ আলম মেম্বার ও একই গ্রামের ছোট শাহ আলমের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। দ্বন্দ্বের জের ধরে ছয় মাস আগে এ দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই সংঘর্ষে ছোট শাহ আলম গ্রুপের ইয়াসিন ও শাহিন নামে দুজন নিহত হন।

তারপর বড় শাহ আলম গ্রুপের সদস্যরা গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যান। সম্প্রতি পাড়াতলী ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়। নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য শাহ আলম মেম্বারের লোকজন গ্রামে ঢোকার চেষ্টা চালান। তারা বৃহস্পতিবার ভোরে টেঁটা-বল্লম ও অস্ত্র নিয়ে গ্রামে ঢুকে ছোট শাহ আলমের বাড়িতে হামলা চালান।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ছোট শাহ আলমের সমর্থকরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে কাচারিকান্দি গ্রামের মারফত আলীর ছেলে সাদির মিয়া (২২) ও একই গ্রামের আসাদ মিয়ার ছেলে হিরন (৩৫) মারা যান। তারা ছোট শাহ আলম গ্রুপের লোক ছিলেন। এছাড়া আটজন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে রায়পুরাসহ নরসিংদীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঢামেক হাসপাতালে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জাগো নিউজকে জানান, নরসিংদীর রায়পুরা থেকে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় তিনজন ঢামেকে এসেছেন। তাদের শরীরে গুলি ও টেঁটাবিদ্ধ হয়েছে।

এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]