অর্থের বিনিময়ে ৬১ অধ্যক্ষকে এমপিও

কারিগরি বোর্ডের সাবেক ডিজি ও পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২২ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২
ফাইল ছবি

কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক নিতাই চন্দ্র সূত্রধর ও পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ঘুস গ্রহণ ও দুর্নীতির মাধ্যমে ৬১টি ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা কলেজের অধ্যক্ষকে এমপিওভুক্ত করার অভিযোগে এ মামলা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুদকের প্রধান কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক শিহাব সালাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, কোনো ধরনের যাচাই-বাছাই এবং প্রশাসনিক অনুমোদন ছাড়াই কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীন ৬১টি ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা কলেজের ৬১ জন অধ্যক্ষকে এমপিও তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের ইএমআইএস সেলের এমপিও ডাটাবেজের মাধ্যমে এমপিও তালিকাভুক্ত করেন অভিযুক্তরা। এর মাধ্যমে তারা প্রায় ১৮ কোটি ৮৬ লাখ টাকা সরকারি অর্থের ক্ষতিসাধন করেন।

মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে নিজেরা লাভবান হয়ে এবং অপরকে লাভবান করার উদ্দেশ্যে ক্ষমতার অপব্যবহার করেন। এছাড়া তারা অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করে সরকারি অর্থের ক্ষতিসাধন করায় দণ্ডবিধি, ১৮৬০ এর ৪০৯/১০৯ ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়।

জানা যায়, ২০১০ সালের ২১ আগস্ট বিকেল ৩টা ২৩ মিনিট থেকে ৪টা ৫ মিনিটের মধ্যে ৬১টি টেকনিক্যাল বিএম (বিজনেস ম্যানেজমেন্ট) কলেজের অধ্যক্ষকে এমপিও তালিকাভুক্ত করা হয়। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের ইএমআইএস সেলে অবস্থিত এমপিও ডাটাবেজে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের আইসিটি শাখার ‘Mostafiz’ নামক ইউজার আইডি ও সংশ্লিষ্ট পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে তাদের এমপিওভুক্ত করা হয়।

দুদকের অনুসন্ধান সূত্রে জানা গেছে, অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বিষয়টি অবগত থাকা সত্ত্বেও কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বরং এতে মৌন সম্মতি দেন তিনি।

এসএম/কেএসআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।