মেহেদী না ইরান, কে থাকছেন বিএনপির জোটে?

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৫১ এএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৭
মেহেদী না ইরান, কে থাকছেন বিএনপির জোটে?

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক ডেকেছেন জোট প্রধান ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আজ (বুধবার) রাত ৮টায় চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে।

বৈঠকে ভাগ্য নির্ধারণ হবে ভেঙে যাওয়া জোট শরিক বাংলাদেশ লেবার পার্টির দুই অংশের কে থাকবেন খালেদা জিয়ার সঙ্গে। মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের অংশ নাকি হামদুল্লাহ আল মেহেদীর অংশ। গুরুত্বপূর্ণ এ সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে বৈঠকে অংশ নেয়া জোটের অন্য শরিকদের কাছেও পরামর্শ চাইতে পারেন তিনি।

গত ৫ নভেম্বর লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান তার মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদীকে সরিয়ে সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. ফরিদ উদ্দিনকে পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মনোনীত করার পরপরই দলের কেন্দ্রীয় কমিটির অধিকাংশ নেতা বিদ্রোহ করেন।

তারা হামিদুল্লাহ আল মেহেদীর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ডা. ইরানকে দলের চেয়ারম্যানসহ প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করে ভাইস চেয়ারম্যান এমদাদুল হক চৌধুরীকে চেয়ারম্যান মনোনীত করেন।

এর মধ্যে দুইপক্ষই বিএনপি ও ২০ দলীয় জোট শরিক দলগুলোর শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। সূত্র জানায়, হামদুল্লাহ আল মেহেদীর নেতৃত্বাধীন কমিটি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গেও ইতোমধ্যে সাক্ষাৎ করেছেন।

কথা রটেছে তাহলে ২০ দলে থাকছে লেবার পার্টির কোন অংশ? বিএনপি কোন অংশকে ২০ দলের শরিক হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে। এক্ষেত্রে বুধবারের সভায় কোনো পক্ষকেই আমন্ত্রণ জানায়নি বিএনপি। এ বিষয়টি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না নেয়া পর্যন্ত কাউকেই আমন্ত্রণ না জানানোর কথা জানা গেছে।

জোটের শরিক একটি দলের শীর্ষ নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, লেবার পার্টির বিষয়টি মীমাংসা না হওয়া পর্যন্ত কোনো অংশকেই আমন্ত্রণ না জানানোটাই সঠিক সিদ্ধান্ত।

জোটের শীর্ষনেতাদের বৈঠকে কোন অংশ থাকবে? এমন প্রশ্নের জবাবে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, আমি পার্টির চেয়ারম্যান, কে যাবে বলেন?

আমাকে বৈঠকে যেতে কেউ নিষেধ করেনি, বৈঠকে অবশ্যই যাবো, বলেন লেবার পার্টির একাংশের এই চেয়ারম্যান।

লেবার পার্টির দুই অংশের কাউকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়নি জানিয়ে বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক বেলাল আহমদ জাগো নিউজকে বলেন, আমরা কাউকেই বৈঠকে অংশ নিতে আমন্ত্রণ জানাইনি।

আমন্ত্রণ জানাতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, দলের হাইকমান্ড থেকে যাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর কথা বলা হয়েছে ওই তালিকায় লেবার পার্টি নেই।

জানতে চাইলে লেবার পার্টির আরেকাংশের মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী জানান, বিএনপির দফতরে যোগাযোগ করার পর জানানো হয়েছে লেবার পার্টির কাউকেই বৈঠকে অংশ নিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

তিনি বলেন, যেহেতু জোটনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বৈঠকে অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

চিকিৎসা শেষে লন্ডন থেকে ফেরার পর এই প্রথম জোট নেতাদের সঙ্গে বৈঠক ডেকেছেন খালেদা জিয়া। স্বাভাবিকভাবেই বৈঠকটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। বৈঠকে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরশেনসহ বিভিন্ন সিটি নির্বাচন বিষয়ে আলাপ হতে পারে।

এমএম/বিএ