বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার আদর্শ মুছে ফেলতে পারেনি

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:১৫ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০১৯

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী, সাউথ এশিয়ান ল’ ইয়ার্স ফোরাম ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধ আন্দোলনের প্রেসিডেন্ট শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা। বাঙালির অধিকারের প্রশ্নে তিনি কখনও আপস করেননি। ঘাতকচক্র জাতির পিতাকে হত্যা করলেও তার নীতি ও আদর্শকে মুছে ফেলতে পারেনি। যতদিন বাংলাদেশ ও বাঙালি থাকবে ততদিন জাতির পিতার নাম কোটি বাঙালির অন্তরে চির অমলিন, অক্ষয় হয়ে থাকবে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) রাজধানীতে সাউথ এশিয়ান ল’ ইয়ার্স ফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ সালাহউদ্দিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা কোনো নিছক ব্যক্তি বিশেষের হত্যাকাণ্ড ছিল না। এটি ছিল জাতির অস্তিত্বের ওপর আঘাত। এর মাধ্যমে যে নীতি ও আদর্শের ভিত্তিতে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, সেই নীতি ও আদর্শকেই ঘাতকেরা হত্যা করতে চেয়েছিল।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলা ও দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন, সেই স্বপ্ন আমরা কতটা পূরণ করতে পেরেছি? তার স্বপ্ন ছিল শোষণমুক্ত, গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা। চিন্তা, মনন ও কর্মে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ ও তা বাস্তবায়ন করতে পারলেই তার আরাধ্য সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা সম্ভব। তার স্বপ্নের গণতান্ত্রিক, অসাম্প্রদায়িক, সমতাভিত্তিক সুখী ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়াই হোক জাতীয় শোক দিবসের অঙ্গীকার।

শেখ সালাহউদ্দিন আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের সঙ্গে নিয়ে বিএনপি-জামায়াত জোট দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। দেশকে লুণ্ঠন করা, হত্যা-খুন-অগ্নিসন্ত্রাসের মাধ্যমে দেশকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়ার রাজনীতির দিন শেষ। দেশকে নিয়ে লুণ্ঠন করলে, এতিমের টাকা আত্মসাৎ করলে কী হয়, খালেদা জিয়া-তারেক রহমান তার উদাহরণ।

সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুন নূর দুলাল, অ্যাডভোকেট এস এম ফজলুল হক সরকার, অ্যাডভোকেট ড. মো. রেজাউল হক, ড. নুরুন নাহার নুপুর, মোহাম্মদ এনামুল হক, অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান, অ্যাডভোকেট আরেফা পারভীন তাপসী, অ্যাডভোকেট মার্শেলা সুইটি, অ্যাডভোকেট মো. শামিম খান, অ্যাডভোকেট মো. সেলিম আজাদ, অ্যাডভোকেট মো. সেলিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আরএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :