বাদলের আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হচ্ছেন মোরশেদ খান

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫০ এএম, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

বিএনপি থেকে ইস্তফা দেয়া সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খান চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপনির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। আজ (বৃহস্পতিবার) স্থানীয় রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে তার মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার কথা রয়েছে।

সূত্র জানায়, এম মোরশেদ খান উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার প্রস্তুতি নিলেও শেষ পর্যন্ত প্রার্থী থাকবেন কিনা তা নিয়ে দ্বিধা রয়েছে। কারণ তার পরিবারের সদস্যরা চাচ্ছেন না তিনি এই নির্বাচনে প্রার্থী হন।

কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, যেহেতু বিএনপি বা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিচ্ছেন না, দুই দলের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে তিনি কর্মী সংকটে ভুগবেন। এসব কারণ দেখিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে মোরশেদ খানকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। পরিবারের বাধা সত্ত্বেও তিনি মনোনয়ন ফরম পূরণ করেছেন এবং তা জমা দেয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন।

আরেকটি সূত্র জানায়, এম মোরশেদ খান তার আসনটি পুনরুদ্ধার করতে চান। দুই দলের বলয়ের বাইরে তিনিও যে রাজনীতিতে কিছু করতে পারেন সেটা প্রমাণ করতে চান।

প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে এম মোরশেদ খানের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে বুধবার রাত ১০টার দিকে জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমি জানি না, বাসায় মেহমান আছে, কাল (বৃহস্পতিবার) কথা হবে।

এম মোরশেদ খান চট্টগ্রাম-৮ আসন থেকে চারবার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। ১৯৮৬ সালে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। পর্যায়ক্রমে ১৯৯১, ১৯৯৬ এবং ২০০১ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির হয়ে মোরশেদ খান এমপি নির্বাচিত হন।

এরপর ২০০৮ সালে দলীয় মনোনয়ন পেলেও তিনি নির্বাচিত হতে পারেননি। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৪ সালে বিএনপি বর্জন করায় সেখানে প্রার্থী হওয়ার সুযোগ হারান এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোরশেদ খান বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিত হন। এক পর্যায়ে চলতি বছরের ৬ নভেম্বর বিএনপি থেকে পদত্যাগ করেন তিনি।

জাসদের এমপি মঈন উদ্দিন খান বাদলের মৃতুত্যে চট্টগ্রাম-৮ আসন শূন্য হওয়ায় এখানে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

কেএইচ/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]