লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিকে হত্যা : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নিন্দা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১২ পিএম, ২৯ মে ২০২০

লিবিয়ায় ২৬ জন বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা ও আরও ১১ জনকে গুরুতর আহত করার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক।

তিনি বলেছেন, লিবিয়া ও মধপ্রাচ্যের দেশগুলোসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অভিবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকেরা এক চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন পার করছেন। করোনা মহামারিতে লাখ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকের জীবনে অবর্ণনীয় দুর্দশা নেমে এসেছে। এদের এক বড় অংশের এখন কোনো কাজ নেই, খাবার নেই, অনেকের বাস করার মতো কোনো ব্যবস্থাও নেই। অভিবাসী হাজার হাজার শ্রমিক এখন ফেরারি হয়ে আতঙ্কের মধ্যে বেঁচে আছেন।

শুক্রবার (২৯ মে) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এসব কথা বলেন।

সাইফুল হক বলেন, ‘আনডকুমেন্ট’ কাগজপত্রহীন অসংখ্য শ্রমিককে গ্রেফতার করে জেলখানায় রাখা হয়েছে। খাদ্যের দাবিতে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের উপর গুলি বর্ষণসহ নির্যাতন-নিপীড়ন অব্যাহত রয়েছে।

তিনি ক্ষোভের সঙ্গে উল্লেখ করেন, অভিবাসী এই শ্রমিকদের দেখভাল ও তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বাংলাদেশের দূতাবাস ও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা চরম দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়ে আসছেন। শ্রমিকেরা দূতাবাসে হাজার হাজার অভিযোগ করার পরও দূতাবাসের কোনো ভূমিকা দেখা যায় না।

তিনি বলেন, অভিবাসী শ্রমিকদের স্বার্থ ও নিরাপত্তা বিধানের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও দায়িত্বহীন ও অকার্যকরী ভূমিকা পালন করে এসেছে। বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, দূতাবাসসহ শ্রমিকদের বিদেশে পাঠানোর সঙ্গে যুক্ত প্রতিষ্ঠান ও মানবপাচারকারীদের কারণে এখন কয়েক লাখ বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকেরা এক ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ের মুখে পতিত হয়েছে।

তিনি অনতিবিলম্বে মানবিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকদের নিরাপত্তা বিধান, তাদের খাদ্য, চিকিৎসা ও কর্মসংস্থান নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন। ফলে আটক শ্রমিকদের মুক্ত করা এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে বাংলাদেশিদের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকার ও সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

তিনি লিবিয়ায় নিহতদের জন্য গভীর শোক জানিয়ে আহতদের উপযুক্ত চিকিৎসা এবং তাদের পরিবারসমূহের পুনর্বাসনেরও দাবি জানিয়েছেন।

এফএইচএস/এফআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]