আল্লাহর নৈকট্য অর্জনে ব্যর্থ যারা

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:২৩ এএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৭

আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘আমি মানুষ এবং জিনকে কেবল এ জন্য সৃষ্টি করেছি যে, তারা আমারই ইবাদত করবে। আমি তাদের কাছে জীবিকা চাই না এবং এও চাই না যে, তারা আমার খাবার জোগাবে।’ (সুরা জারিয়াত : আয়াত ৫৬-৫৭)

আল্লাহ তাআলা মানুষকে সৃষ্টি করেছেন তার ইবাদত করার জন্য। আর মানুষের ইবাদত করার একমাত্র লক্ষ্য হলো আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জন করা। যারা আল্লাহর ইবাদতে ব্যর্থ হয়, তারা তাঁর নৈকট্য লাভেও ব্যর্থ।

ইবাদত কি মানুষ তা অনুভব বা উপলব্ধি করতে চায় না। শুধুমাত্র নামাজ-রোজা-হজ-জাকাত আদায় করাকেই মানুষ ইবাদত হিসেবে জানে। এ গুলো পালন করা আল্লাহর নির্দেশ এবং ইবাদত ঠিক। কিন্তু এগুলো আদেশমূলক ‘মা’রূপ’ ইবাদত।

আল্লাহ তাআলা বান্দার জন্য এমন অনেক কাজের নির্দেশেনা দিয়েছেন যেগুলো করা যাবে না। যে নির্দেশগুলো অমান্য করলে নামাজ-রোজা আদায়ের পরও মানুষ ধংসে পতিত হয়।

মানুষ সাধারণত ৩ কারণে আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জনে ব্যর্থ হয়। যা মানুষকে ধ্বংস ও অধঃপতনের দিকে ধাবিত করে। আর তাহলো-

>> যে ব্যক্তি ইলম বা জ্ঞান অর্জন করে; কিন্তু ইলম বা জ্ঞান অনুযায়ী আমল করে না।
>> আল্লাহর প্রিয় বান্দা (সালেহীন) ও সৎ মানুষের সাক্ষাৎ পাওয়ার পর তার মর্যাদা না করা এবং তার প্রতি সম্মান না করা।
>> আল্লাহর নৈকট্য অর্জনে নেক কাজ করার সুযোগ পাওয়া সত্ত্বেও একনিষ্ঠতার সঙ্গে ইবাদত করতে না পারা।

তাছাড়া যখন কোনো মানুষ তার আত্মাকে অপবিত্র করে ফেলে তখন সে মানুষ দ্বারা নেক আমল করা সম্ভব হয় না। আবার যে মানুষের শরীর হারাম খাদ্য দ্বারা গঠিত; সে শরীর ও মনে আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগির প্রতি একনিষ্ঠতা থাকে না। ফলে তাদের ইবাদত-বন্দেগি কবুল হয় না।

এ সব অবস্থায় যারা আলম-ইবাদত-বন্দেগি করে তাদের তাদের আমল ও ইবাদত যেমন কবুল হয় না তেমনি তারা আল্লাহর নেকট্য অর্জনে ব্যর্থ হয়।

সুতরাং বুঝা গেল...
আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের ব্যর্থতা থেকে বাঁচতে হলে অবশ্যই মানুষকে ইলম থেকে ফায়েদা লাভ করতে হবে। প্রতিটি আমলের মধ্যেই একনিষ্ঠতা আবশ্যক এবং আল্লাহওয়ালা ব্যক্তিদের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধার অনুভূতি জাগ্রত করতে হবে।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তার নৈকট্য অর্জনের ব্যর্থতা থেমে মুক্ত থাকার তাওফিক দান করুন। ইলম অনুযায়ী আমল করার তাওফিক দান করুন। আল্লাহর আদেশগুলোর সঙ্গে সঙ্গে তাঁর নিষেধাজ্ঞাগুলো থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। ইবাদত বন্দেগিতে একনিষ্ঠ হওয়ার তাওফিক দান করুন। সর্বোপরি আল্লাহর প্রিয়বান্দাদের সোহবত গ্রহণ ও অনুসরণ-অনুকরণ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর