চরমোনাই বার্ষিক মাহফিল ২৬-২৮ ফেব্রুয়ারি

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:০২ এএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

চরমোনাই বার্ষিক মাহফিল ২৬ ফেব্রুয়ারি বুধবার শুরু হবে। ২৮ তারিখ জোহরের পর আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে মাহফিল শেষ হবে। চরমোনাই পীর মাওলানা সৈয়দ মো. রেজাউল করিম সাহেবের আম বয়ানের মধ্যমে বুধবার বাদ জোহর মাহফিল শুরু হবে।

মাহফিলে অংশ নিতে ইতিমধ্যে কীর্তনখোলা নদীর তীরবর্তী চরমোনাই মাদ্রাসার মাঠসহ আশপাশের এলাকাজুড়ে সমবেত হচ্ছেন মুসল্লিরা।

৩ দিনব্যাপী মাহফিলে দেশ-বিদেশ থেকে আগত আলেম-ওলামারা গুরুত্বপূর্ণ বয়ান পেশ করবেন। মাহফিল চলাকালীন প্রতিদিন বাদ ফজর ও মাগরিবের পর চরমোনাই পীর মুফতি রেজাউল করীম মুরিদীন মুহিব্বিন-এর উদ্দেশ্যে হেদায়েতি বয়ান পেশ করবেন। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মো. ফয়জুল করিমও গুরুত্বপূর্ণ দ্বীনি বয়ান পেশ করবেন।

এ ছাড়া মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানি, মুফতি সৈয়দ মো. আবুল খায়ের, মরহুম পীর সাহেবের খলিফা মাওলানা আবদুর রশিদ (পীর সাহেব বরগুনা), আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী (পীর সাহেব কারীমপুর) ও অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ (পীর সাহেব খুলনা) উপস্থিত থাকবেন।

মাহফিলের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার সকালে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের উদ্যোগে ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলন এবং তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার ইসলামী ছাত্র আন্দোলনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ারও কথা রয়েছে। এ বছরও মাহফিলের বয়ান লাইভ সম্প্রচার www.charmonaivs.net ওয়েবসাইটটি সক্রিয় থাকবে জানা যায়।

এবার মুসল্লিদের জন্য মোট ৫টি মাঠে ১০ বর্গকিলোমিটারের বেশি প্যান্ডেলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলায় রয়েছে পুলিশ-র‌্যাব ছাড়াও নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় প্রায় কয়েক হাজার স্বেচ্ছাসেবক ছাত্র, শিক্ষক ও মুরিদান-মুহি্ব্বিন। ইতিমধ্যে মাহফিলের সাবির্ক কাজও প্রায় সম্পন্ন হওয়ার পথে।

পুরো মাহফিল নিয়ন্ত্রণ ও পর্যপেক্ষণে থাকবে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ব্যবস্থা। বিদ্যুৎ সেবা নিশ্চিত করতে প্রস্তুত রাখা হবে হাই ভোল্টেজ অটো জেনারেটর।

আগত মুসল্লিদের স্বাস্থ্যসেবায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে থাকবে একটি দক্ষ মেডিকেল টিম কাজ করবে।

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার বাদ জোহর আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে মাহফিল শেষ হবে। মাহফিল কমিটির পক্ষ থেকে দেশবাসীকে জিকিরের সঙ্গে মাহফিলে যোগদানের জন্য আহ্বান করা হয়েছে।

এমএমএস/পিআর