প্রবল ঘূর্ণিঝড়-বজ্রপাতে পড়ার দোয়া

ইসলাম ডেস্ক
ইসলাম ডেস্ক ইসলাম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:১৪ পিএম, ২৬ মে ২০২২

মানুষের জীবন ও প্রকৃতির জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর প্রবল ঘূর্ণিঝড়-বৃষ্টি। ফলে মাঠ-ঘাট, চলাচলের রাস্তা, ঘর-বাড়ি এবং উপকূলীয় এলাকা পানিতে তলিয়ে যায়। বিপন্ন হয়ে পড়ে মানুষসহ পশু-প্রাণীর জীবন। এসব থেকে মুক্তি পেতে আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনার ছোট্ট একটি দোয়া শিখিয়েছেন নবিজী। কী সেই দোয়া?

ঝড়-বৃষ্টি-বজ্রপাত শুরু হলে হা-হুতাশ, চিৎকার-চেঁচামেচি না করে মহান আল্লাহর ওপর তাওয়াক্কুল করা। একনিষ্ঠতার সঙ্গে হাদিসে শেখানো দোয়াগুলো বেশি বেশি পড়া। আল্লাহর কাছে এভাবে সাহায্য চাওয়া-
১. প্রবল ঘূর্ণিঝড়-বৃষ্টিতে ছোট্ট এ দোয়াটি পড়া-
اَللهُمَّ حَوَالَيْنَا وَ لَا عَلَيْنَا
উচ্চারণ : ‘আল্লাহুম্মা হাওয়ালাইনা ওয়া লা আলাইনা।’
অর্থ : ‘হে আল্লাহ! আমাদের থেকে (ঘূর্ণিঝড়-বৃষ্টি) ফিরিয়ে নাও; আমাদের ওপর (এসব) দিয়ো না।' (বুখারি)

২. আকাশের বিকট বজ্র থেকে বাঁচতে ছোট্ট এ তাসবিহ পড়া-
سُبْحَانَ اللهِ وَبِحَمْدِهِ
উচ্চারণ : ‘সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি।’
সে বজ্রপাতের আঘাত থেকে মুক্ত থাকবে। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা)

৩. হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু তাঁর বাবা থেকে বর্ণনা করেছেন, নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন বজ্রের শব্দ শুনতেন তখন বলতেন-
اَللَّهُمَّ لَا تَقْتُلْنَا بِغَضَبِكَ وَ لَا تُهْلِكْنَا بِعَذَابِكَ وَ عَافِنَا قَبْلَ ذَلِكَ
উচ্চারণ : ‘আল্লাহুম্মা লা তাক্বতুলনা বিগাদাবিকা ওয়া লা তুহলিকনা বিআজাবিকা, ওয়া আ’ফিনা ক্ববলা জালিকা।’ (তিরমিজি)
অর্থ : ‘হে আমাদের প্রভু! তোমার ক্রোধের বশবর্তী হয়ে আমাদের মেরে ফেল না আর তোমার আজাব দিয়ে আমাদের ধ্বংস করো না। বরং এর আগেই আমাদের ক্ষমা ও নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে নাও।’

৪. হজরত আবদুল্লাহ ইবনে জুবাইর রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, নিশ্চয় রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন মেঘের গর্জন শুনতেন তখন কথাবার্তা ছেড়ে দিতেন এবং এ আয়াত পাঠ করতেন-
سُبْحَانَ الَّذِىْ يُسَبِّحُ الرَّعْدُ بِحَمْدِهِ وَالْمَلَائِكَةُ مِنْ خِيفَتِهِ
উচ্চারণ : ‘সুবহানাল্লাজি ইউসাব্বিহুর রাদু বিহামদিহি ওয়াল মালাইকাতু মিন খিফাতিহি।’
অর্থ : ‘পবিত্র সেই মহান সত্তা প্রশংসা যিনি পানিভরা মেঘ উঠান। মেঘের গর্জন তার প্রশংসা সহকারে তাঁর পবিত্রতা বর্ণনা করে এবং তার ফেরেশতারাও তাঁর ভয়ে কম্পিত হয়ে তাঁর তাসবিহ পাঠ করে।’ (মুয়াত্তা মালেক, মিশকাত)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে প্রবল ঘূর্ণিঝড়-বজ্রপাত-বৃষ্টিতে হাদিসের দিকনির্দেশনা মোতাবেক যথাযথ আমল করার তাওফিক দিন। জনজীবন ও প্রকৃতির মারাত্মক ক্ষতি থেকে মুক্তি দিন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]