ফেরেশতাদের সঙ্গে আল্লাহর পরামর্শ

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:০২ পিএম, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৫

আল্লাহ রাব্বুল আলামিন মানুষ সৃষ্টির পূর্বে ফেরেশতাদের সঙ্গে পরামর্শ করেছেন। অথচ আল্লাহর কাজের সম্পর্কে কোনো প্রশ্নের অবকাশ নেই, কিন্তু অন্যান্য সবাইকে তাদের কৃতকর্মের জন্য আল্লাহর নিকট প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে। তথাপিও আল্লাহ তাআলার কি হিকমত রয়েছে যে, তিনি ফেরেশতাদেরকে প্রতিনিধি তৈরির ব্যাপারে পরামর্শ চাইছেন। আল্লাহ বলেন-

Quran

‘আর তোমার পালনকর্তা যখন ফেরেশতাদিগকে বললেন, আমি পৃথিবীতে একজন প্রতিনিধি বানাতে যাচ্ছি। (সুরা বাক্বারা : আয়াত ৩০)

যেখানে ফেরেশতাসহ সমগ্র সৃষ্টিই তার আয়ত্বাধীন। তাঁর কোনো কাজ বা পদক্ষেপ সম্পর্কে প্রশ্ন তোলার অধিকার কারোর নেই। সেখানে আল্লাহ তাআলা মানুষ সৃষ্টির ব্যাপারে ফেরেশতাদের সঙ্গে পরামর্শ করেছেন।
আল্লাহ তাআলার হিকমত

এখানে ফেরেশতাদের সঙ্গে পরামর্শ গ্রহণ উদ্দেশ্য নয় এবং এর কোনো আবশ্যকতাও ছিল না। কিন্তু পরামর্শ গ্রহণের রূপ দেয়া হয়েছে। যাতে করে মানুষ পরামর্শরীতি ও তার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে শিক্ষা লাভ করতে পারে। যেমন- কুরআনুল কারিমের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন কাজে ও ক্ষেত্রে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে সাহাবায়ে কেরামের সঙ্গে পরামর্শের তাগিদ দিয়েছেন। অথচ রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ছিলেন ওহির ধারক এবং বাহক। তাঁর কাজ-কর্ম এবং প্রত্যেক অধ্যায় ও দিক ওহির মাধ্যমে বিশ্লেষণ করে দেয়া হতো। তাই রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মাধ্যমে সকল বান্দার জীবনে পরামর্শ গ্রহণের রীতির প্রচলন ও শিক্ষা দেয়ার উদ্দেশ্যে তাঁকেও পরামর্শ গ্রহণের তাগিদ দিয়েছেন।

সুতরাং আল্লাহ তাআলার উম্মাতে মুসলিমাকে তাঁর শিখানো পদ্ধতিতে বান্দার জীবনের প্রতিটি কাজে ক্ষেত্র বিশেষ পরিবার থেকে শুরু করে বিজ্ঞজনদের পরামর্শ গ্রহণ করে সাওয়াব ও বরকত লাভ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]