উত্তরের খসড়া জমা, দক্ষিণে চলছে যাচাই-বাছাই

আমানউল্লাহ আমান
আমানউল্লাহ আমান আমানউল্লাহ আমান , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১৩ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা জমা দেয়া হয়েছে দলটির সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে। দক্ষিণ শাখায় চলছে পাঁচ হাজার পদপ্রত্যাশীর জীবনবৃত্তান্তের যাচাই-বাছাই। ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখা এবং সংশ্লিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছ থেকে এমন তথ্য জানা গেছে।

উত্তর শাখা আওয়ামী লীগের নেতারা জানিয়েছেন, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির একটি খসড়া তালিকা দলটির সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে জমা দেয়া আছে। করোনা পরিস্থিতি সৃষ্টির আগে এটি জমা দেয়া হয়। সদ্যবিদায়ী কমিটির অধিকাংশ নেতাকে রেখে এবং মহানগর উত্তরের ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক কিছু নেতাকে নতুন করে পদায়নের প্রস্তাব করা হয়েছে ওই খসড়া তালিকায়। তবে মহানগরের রাজনীতিতে একেবারে নতুন মুখ কাউকে কমিটিতে নেয়া হয়নি বলে জানা গেছে।

মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, সদ্যবিদায়ী কমিটিতে কোনো পদে ছিলেন না এমন বেশ কয়েকজন সাবেক নেতা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে তদবির চালাচ্ছেন। তারা ধরনা দিচ্ছেন দক্ষিণ শাখার শীর্ষ দুই নেতা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে। একই সঙ্গে পদপ্রত্যাশীরা আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী ফোরামের বিভিন্ন নেতা, এমপি ও মন্ত্রীদের দিয়ে তদবির করাচ্ছেন, যেন প্রত্যাশিত পদে আসীন হওয়া যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দক্ষিণ শাখা আওয়ামী লীগের পদপ্রত্যাশী এক নেতা জানান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা করা হয়নি। তবে পদপ্রত্যাশীরা সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের পেছনে দৌড়ঝাঁপ করছেন পদ পাওয়ার জন্য।

ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি এ প্রসঙ্গে জাগো নিউজকে বলেন, মহানগর উত্তর শাখার একটি খসড়া তালিকা দলীয় সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে করোনাকাল শুরুর আগে জমা দিয়েছি। আমাদের মাননীয় সভাপতি সেই তালিকা যাচাই-বাছাই করে নির্দেশনা দেবেন। সদ্যবিদায়ী কমিটির পুরোনো যারা ছিলেন অধিকাংশ ক্ষেত্রে তাদের রাখা হয়েছে, তার সঙ্গে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও মহিলা লীগের সাবেক নেতাদের বিভিন্ন পদ দেয়ার জন্য তালিকায় প্রস্তাব করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মান্নাফি জাগো নিউজকে বলেন, ৭১ সদস্যের কমিটিতে পদপ্রত্যাশী পাঁচ হাজার জনের জীবনবৃত্তান্ত যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। সেখান থেকে ভালো মানুষদের নিয়ে আমরা একটি কমিটি করতে পারব বলে বিশ্বাস করি।

‘আমাদের কাছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা, মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যদেরও সুপারিশ আসছে। তাদের পছন্দের ব্যক্তিদের পদ দেয়ার জন্য। এমনও দেখা গেছে, যাদের জন্য সুপারিশ আসছে, তারা কোনা দিন পার্টি অফিসে আসেননি, কখনও আসবেন কি-না, তা নিয়েও সন্দেহ আছে। তারপরও তালিকায় তাদের নাম লাগবে। এসব কিছু মিলিয়ে আমরা কাজ করছি। অগ্রগতিও রয়েছে’— বলেন আবু আহমেদ মান্নাফি।

এইউএ/এমএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]