সাফল্যের গোপন রহস্য জানালেন মাশরাফি

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা সিলেট
প্রকাশিত: ০৯:৪০ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

উইকেট, পরিবেশ, টিম কম্বিনেশন আর প্রতিপক্ষ-খেলার আগে ও পরে ঘুরেফিরে এসব নিয়ে কত কথাই না হয়েছে। অনেক প্রশ্নও উঠেছে; কিন্তু মাশরাফি বারবার একটি কথাই বলেছেন, ‘হ্যাঁ উইকেট, টিম কম্বিনেশন, ব্যাটিং অর্ডার এবং প্রতিপক্ষ- সব কিছুরই কিছু না কিছু প্রভাব থাকে। তবে আসল কথা হলো, নিজেদের সামর্থ্যের সেরাটা উপহার দেয়া। লক্ষ্য-পরিকল্পনা ও কৌশলের সঠিক ও যথাযথ বাস্তবায়ন বা সঠিক প্রয়োগটাই মূল।’

আজ খেলা শেষে ঠিক সে কথাটিই আবার নতুন করে শোনালেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। খেলা শেষে সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের কনফারেন্স হলে জনাকীর্ণ সংবাদ সন্মেলনে বাংলাদেশ ক্যাপ্টেন বলে দিলেন, কিছু আনুসাঙ্গিক বিষয় ও উপকরণ আছে; কিন্তু সে গুলো শেষ পর্যন্ত অনুসঙ্গ। আসল কথা হলো সামর্থ্য, কৌশল, লক্ষ্য-পরিকল্পনা এবং ছকের সঠিক ও যথার্থ বাস্তবায়ন। সেটা যেদিন খুব ভাল ও সঠিক হয় সেদিন সাফল্য ধরা দেয়।’

প্রশ্ন উঠেছিল, আজকের এ সহজ জয় কি টিম কম্বিনেশন যথাযথ হবার কারণে? নাকি লক্ষ্য ও পরিকল্পনার সঠিক ও যথাযথ বাস্তবায়নের ফসল এ সাফল্য? মাশরাফির ব্যাখ্যা, কম্বিনেশন দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তবে সব সময় যে সঠিক কম্বিনেশনই সাফল্যের পূর্ব ও প্রধান শর্ত, তা মানতে রাজি নন মাশরাফি। তার কাছে মনে হয় সামর্থ্যের সঠিক ও সর্বোচ্চ প্রয়োগটাই আসল।

শুক্রবারের সহজ জয়ের পেছনের কথা বলতে গিয়ে মাশরাফির ব্যাখ্যা, ‘আজকে প্রথম উইকেট পড়ার পর থেকেই বোলাররা পরিকল্পনা শতভাগ বাস্তবায়ন করতে পেরেছে। সবসময় ওয়েস্ট ইন্ডিজ চাপে ছিল। সেখান থেকে বের হতে পারেনি।’

পাশাপাশি টস জয়টাও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল বলে মনে হয় বাংলাদেশ অধিনায়কের। ব্যাটিংয়েও সম্ভাব্য সেরা পারফমেন্স হয়েছে। সে সম্পর্কে মাশরাফির মূল্যায়ন, ‘ব্যাটসম্যানদের জন্য যেটা সবচেয়ে ভালো সম্ভব ছিল, তারা সেটাই করেছে।’

সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে এতকাল জয় অধরা ছিল। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার কাছে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আর গত মাসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট পরাজয়ই সঙ্গী ছিল এতকাল। আজ সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে প্রথম ওয়ানডেতে সে পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে জয়ের পথে টাইগাররা। তার নেতৃত্বেই ধরা দিল সিলেটে প্রথম।

তার অনুভুতি জানতে চাওয়া হলে মাশরাফি বলেন, ‘বাংলাদেশের ভেতর আমরা যেখানেই খেলি, ওটা বাংলাদেশই। দারুণ একটি মাঠ এটি। যখন শুরু হয়েছে, সবাই বলেছে। আমরাও দেখেছি। একসময় না একসময় জয় আসতই। আজকে হওয়ায় ভালো হলো। ইনশাল্লাহ এটা চলবে সামনে।’

বছর শুরু হয়েছিল তিন জাতি আসরের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে হার দিয়ে। আর শেষ হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২-১’এ সিরিজ বিজয় দিয়ে। সব মিলে কেমন কাটলো বছর?

জানতে চাওয়া হলে মাশরাফি একটু পিছনে চলে গেলেন। বললেন, ‘১২টি সিরিজের মধ্যে ৮টি জিতলে আত্মবিশ্বাস ভালো থাকে। পাশাপাশি ওই পরিসংখ্যানটা অগ্রগতির পরিস্কার নির্দেশক। এরপর নিউজিল্যান্ড সিরিজ আছে। আমাদের জন্য সিরিজটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। গতবার আমরা ওদের ওখানে গিয়ে হেরে এসেছি। আমার কাছে মনে হয়, এবার আমাদের দল আরও ব্যালান্সড। আমার বিশ্বাস, আগেরবারের চেয়ে ভালো খেলব। বিশ্বকাপের জন্যও কিছুটা হলে আদর্শ হবে। যদিও কন্ডিশন কিছুটা ভিন্ন। তবুও ভালো হবে।’

এআরবি/আইএইচএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :