পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দল থেকে আমিরের বাদ পড়ার নেপথ্যে

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০৭ পিএম, ১৯ এপ্রিল ২০১৯

বিশ্বকাপের আর বেশি দেরি নেই। অংশগ্রহণকারী বেশিরভাগ দেশই তাদের দল দিয়ে দিয়েছে। পাকিস্তানও তাদের পছন্দের ১৫ জন বেছে নিয়েছে, যেখানে নেই মোহাম্মদ আমিরের নাম। বিশ্বকাপের মতো কঠিন টুর্নামেন্টে এমন একজন বোলারের নাম না দেখে অবাক হয়েছেন অনেকেই।

ইংল্যান্ডে আমিরের রেকর্ড খুবই ভালো। বেশিদিন আগের কথা তো নয়। ২০১৭ সালে এই ইংল্যান্ডের মাটিতেই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে দুর্দান্ত বোলিং করে দলকে জিতিয়েছিলেন আমির। বড় সংগ্রহ তাড়া করতে নামা ভারতের ইনিংসে নয় ওভারের মধ্যে সেরা তিন ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা আর বিরাট কোহলিকে তুলে নিয়ে শিরোপা জয়ের রাস্তাটা তৈরি করে দেন তিনি।

সেই আমিরই এবার নেই ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপে। সিদ্ধান্তটা নিঃসন্দেহে কঠিন ছিল ইনজামাম উল হকের নেতৃত্বাধীন নির্বাচক কমিটির জন্য।

কিন্তু পরিসংখ্যান তো আমিরকে বাঁচানোর পক্ষে কথা বলছে না। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর দুই বছরে ওয়ানডেতে ১০১ ওভার বল করে মাত্র ৫ উইকেট নিতে পেরেছেন তিনি। গড় ৯২.৬০। এই সময়ের মধ্যে সারা বিশ্বব্যাপি অন্তত ৬০০ বল করেছেন, এমন বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বাজে পারফরম্যান্স তার।

তবে আরেকটি পরিসংখ্যান কিন্তু আমিরের পক্ষে। নিজের খারাপ সময়েও আমির ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন ৪.৫৮। আধুনিক ক্রিকেটে যাকে বেশ সমীহ জাগানিয়াই বলা যায়। এছাড়া খারাপ সময় কাটালেও আমিরের ক্যারিয়ারে ওভারপ্রতি রান দেয়ার গড় এখন ৪.৭৮। অর্থাৎ উইকেট না পেলেও ব্যাটসম্যানদের ক্রিজে আটকে রাখার কাজটা বেশ ভালোভাবেই করতে জানেন এই বাঁহাতি।

এই দিকটি বিবেচনার সঙ্গে অভিজ্ঞতাকে সামনে রাখলে আমির বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পেতেই পারতেন। সেটা হয়নি। যদিও ২৭ বছর বয়সী এই পেসারের এখনই যে সব শেষ হয়ে গেছে, এমনও নয়।

নির্বাচকরা তার জন্য একটি সুযোগ রেখেছেন। বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের দলে জায়গা না হলেও ইংল্যান্ড সফরে থাকবেন আমির। সেখানে ভালো করলে বিশ্বকাপ মঞ্চেও পা রাখার সুযোগ আসবে। কেননা ২৩ মে পর্যন্ত আইসিসির কোনো অনুমতি না নেয়া সাপেক্ষে দলে পরিবর্তন আনতে পারবে যে কোনো দেশ।

আমিরের সামনে সে সুযোগটা আসতে পারে। পূর্বসূরী শোয়েব আখতার তো তার জন্য শুভকামনাও জানিয়ে রেখেছেন। পাকিস্তানের কিংবদন্তি এই পেসার বলেন, ‘আমি এখনও মনে করি, ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে আমির ভয়ংকর অস্ত্র হতে পারে। ইংল্যান্ড সিরিজে নিজেকে প্রমাণ করে ২৩ মের মধ্যে বিশ্বকাপ দলে ঢোকার সুযোগ থাকবে। শুভকামনা আমির, তুমি সেটা পারবে।’

এমএমআর/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :